ট্রাম্পের অভিশংসন তদন্তে প্রকাশ্য শুনানি শুরু

সিপ্লাস ডেস্ক
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০৮ pm
  • ১১৭ বার পড়া হয়েছে

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসনে বুধবার থেকে প্রকাশ্য শুনানি শুরু হয়েছে।

ইউক্রেনে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ কূটনীতিক উইলিয়াম টেইলর ও মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ডেপুটি অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি জর্জ কেন্টের সাক্ষ্যের মধ্য দিয়ে এ প্রক্রিয়া শুরু হয় । শুক্রবার ইউক্রেনে নিযুক্ত সাবেক মার্কিন রাষ্ট্রদূত মেরি ইভানোভিচ সাক্ষ্য দেয়ার কথা রয়েছে।

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি তার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন ও তার ছেলের বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন দুর্নীতির অভিযোগ তদন্তে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির জিলেনস্কিকে চাপ দিয়েছিলেন। জো বাইডেনের ছেলে ইউক্রেনের গ্যাস কোম্পানি বুরিসমায় ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ছিলেন।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে ফোনালাপে তিনি ওই তদন্ত আবারও শুরু করতে চাপ দেন ট্রাম্প এবং চাপ প্রয়োগের অংশ হিসেবে তিনি ইউক্রেনে মার্কিন সামরিক সহায়তাও সাময়িকভাবে বন্ধ রাখেন।

গত সেপ্টেম্বরে সিআইএ’র সাবেক এক কর্মকর্তা ট্রাম্পের ফোনালাপ ফাঁস করে দেন। এতে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ ওঠে। তবে ট্রাম্প জানান, তিনি কোনো অন্যায় করেননি। এরপরে এই অভিশংসনের তদন্তের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়।

বুধবারের শুনানিতে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ওই অভিযোগ নিয়ে প্রকাশ্যে বিস্তারিত শুনতে অভিশংসন তদন্তের নেতৃত্বে থাকা হাউজ ডেমোক্র্যাটরা তিন মার্কিন কূটনীতিককে ডেকে পাঠান। তাদের তিনজনই এর আগে রুদ্ধদ্বার অধিবেশনে সাক্ষ্য দিতে এসে ইউক্রেইনের সঙ্গে ট্রাম্পের ফোনকলের বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন।

ঐতিহাসিক এ শুনানি অধিবেশনের উদ্বোধন করেন প্রতিনিধি পরিষদের গোয়েন্দা কমিটির চেয়ারম্যান অ্যাডাম শিফ।

উদ্বোধনী বক্তব্যে শিফ বলেন, অভিশংসন তদন্তে যে প্রশ্ন উঠেছে তা হচ্ছে, ট্রাম্প মিত্রদেশটির দুর্বলতাকে কাজে লাগাতে এবং আমাদের নির্বাচনে ইউক্রেইনকে হস্তক্ষেপ করাতে চেয়েছিলেন কিনা। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত কেবল প্রেসিডেন্সির ভবিষ্যৎ নয় বরং খোদ প্রেসিডেন্টের ভবিষ্যতেও প্রভাব ফেলবে বলে শিফ উল্লেখ করেন।

চলমান এ তদন্তে ইতিমধ্যে কংগ্রেসে সাক্ষ্য দিয়েছেন জর্জ কেন্ট, মেরি ইভানোভিচ ও উইলিয়াম টেইলর। এবার তারা জনসম্মুখে সাক্ষী দেবেন এবং তাদের ধারণা, জনসম্মুখে শুনানি হলে ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট পদ হারাতে পারেন।

More News Of This Category
© All rights reserved © 2019 cplusbd.net