গণভবনে যুবলীগের সঙ্গে বৈঠকে যা বললেন প্রধানমন্ত্রী

সিপ্লাস ডেস্ক
  • Update Time : রবিবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৯, ০৯:৪৫ pm
  • ১০৯ বার পড়া হয়েছে

সপ্তম জাতীয় কংগ্রেস সামনে রেখে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠক করেছেন যুবলীগ নেতারা।

রোববার (২০ অক্টোবর) বিকেল পাঁচটার পর এ বৈঠক শুরু হয়। বৈঠকে প্রথমে আলোচনায় আসে যুবলীগ প্রসঙ্গ। যুবলীগের আসন্ন কংগ্রেসসহ সংগঠনটির ভাবমূর্তি পুনরুদ্ধারের বিষয়েও আলোচনা হয়। বৈঠকে যুবলীগের কংগ্রেস নিয়ে জরুরি নির্দেশনা দিয়েছেন শেখ হাসিনা।

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী তার ভাষণে ভোলায় স্থানীয় জনতা ও পুলিশ সংঘর্ষে চার জন নিহতের ঘটনায় দেশবাসীকে ধৈর্য ধরার আহ্বান জানান। বলেন, ‘যারাই এ ঘটনায় জড়িত থাকুক, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ঘটনায় যারা ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছেন, তাদের কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভোলায় আইডি হ্যাক করা হয়েছে, তিনি জিডি করেছেন। আর যিনি আইডি হ্যাক করেছিলেন, তাকেও গ্রেফতার করা হয়েছে। আমার কথা হলো, আইডি হ্যাক করে যিনি নোংরা কথা লিখেছেন, তিনি তো মুসলমান। সত্যি যদি তার ধর্মে বিশ্বাস ও শ্রদ্ধা থাকতো, তাহলে রাসুল (সা.) সম্পর্কে তিনি এসব কথা লিখতে পারতেন না। তার পেছনে কারা আছে, তাদের খুঁজে বের করতে হবে। নবীর বিরুদ্ধে কেউ কিছু লিখলে তা যাচাই করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

দেশকে জঙ্গিবাদ, মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত করতে কাজ শুরু করা হয়েছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা দেশকে যখন এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। সন্ত্রাস, মাদক ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রাখছি তখনই সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে। এই ক্ষেত্রে যারাই অপরাধী হবে তাদের কোনো ক্ষমা নেই। তাদের বিরুদ্ধে আমরা ব্যবস্থা নেব। কারণ আমরা যখন দেশকে উন্নয়নের পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি, স্বাভাবিকভাবে কিছু মানুষের ভেতরে একটা লোভের সৃষ্টি হয় আর তার ফলাফল হিসেবে সমাজটা ধ্বংসের দিকে যায়। কাজেই এই ধরনের অন্যায় অবিচার কখনও বরদাশত করব না।

শেখ হাসিনা বলেন, সবাই মিলে অর্থনৈতিকভাবে স্বচ্ছল থাকুক, সেটা আমরা চাই। কিন্তু অন্যায়ভাবে যদি কেউ কিছু করে তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া, এটা একান্তভাবে অপরিহার্য বলে আমি মনে করি।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, সমাজে যখন একটা পরিবর্তন আসে তখন স্বাভাবিকভাবে দেখা যায় কিছু কিছু মানুষ রাতারাতি আঙুল ফুলে কলা গাছ হয়ে যায়। সমাজের সর্বস্তরের তৃণমূল মানুষের সার্বিক অর্থনৈতিক উন্নয়ন যাতে বজায় থাকে আমরা সেদিকে লক্ষ্য রেখেই কাজ করে যাচ্ছি।

এ সময় শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনগুলোর নিয়মিত সম্মেলন করার ওপর জোর দেন। তিনি বলেন, নিয়মিত সম্মেলন করলে দলে গতি আসে। যুবলীগের পর পর্যায়ক্রমে অন্যান্য সংগঠনের সঙ্গেও বৈঠক করা হবে।

বৈঠকে দুর্নীতির অভিযোগে যুবলীগ থেকে ওমর ফারুক চৌধুরীকে বহিষ্কার করা হয়। আর যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান করা হয়েছে ঢাকা-১০ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসকে।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© All rights reserved © 2019 cplusbd.net
Shares