নিউজটি শেয়ার করুন

সীতাকুণ্ডে কিশোর গ্যাংয়ের হামলায় স্কুল শিক্ষার্থী মারাত্বক জখম

সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি: সীতাকুণ্ডের বাড়বকুণ্ডে কথা কাটাকাটির জেরে নাজমুল হাসান সানি(২০) নামের এক বন্ধুকে মেরে মারাত্বক জখম করেছে কিশোর গ্যাং।

চাপাতির আঘাতে বর্তমানে সানি চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার বাড়বকুণ্ড ইউনিয়নের মাহমুদাবাদ এলাকায়।

এঘটনায় সানি মা খালেদা আক্তার বাদী হয়ে সাতজনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা আরো ৫/৬ জনের বিরুদ্ধে সীতাকুণ্ড মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

থানায় মামলা সূত্রে জানা যায়, বাড়বকুণ্ডের বাজারতলী নেদু সওদাগরের বাড়ীর জসীম উদ্দিনের ছেলে বাড়বকুণ্ড উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী নাজমুল হাসান সানির বন্ধু জিসানের সাথে ইমাম (১৯) ঝগড়া হয় এক সাপ্তাহ আগে।

এর জের ধরে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় সানি ও তাহার বন্ধ জিসান এবং শিপন বাড়বকুণ্ড রেল স্টেশনে বসে আড্ডা দেওয়ার সময় এক নম্বর আসামী ইমাম(১৯), রাকিব(১৯), ইমন (২২), শওকত (২০), মোঃ শাকিব (২০) মোঃ রানা (২০), মোঃ মিজান (২১) সহ আরো ৫/৬ জনের কিশোর গ্যাং সানির উপর হামলা চালিয়ে ব্যাপক মারধর করে।

এক পর্যায়ে তারা সানিকে ধারালো ছুরি দিয়ে মুখে আঘাত করে। এতে সানি মারাত্বক আহত হলে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

বর্তমানে সে চমেক হাসপাতালের ৫ম তলার ২০ নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছে। এঘটনায় সানিম মা খালেদা আক্তার বাদী হয়ে ইমামকে প্রধান আসামী করে এবং ৭জনের নামে সোমবার একটি মামলা দায়ের করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মডেল থানার ওসি(তদন্ত) সুমন বণিক।

এব্যাপারে বাড়বকুণ্ড ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছাদাকাত উল্লাহ মিয়াজী বলেন, এটি একটি কিশোর গ্যাং। সনির উপর হামলার পর আমি তার পরিবারকে বলেছি আইনের আশ্রয় নিতে। এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে না হলে তারা আরো বড় ধরণের অপরাধের সাথে জড়িত হবে।