নিউজটি শেয়ার করুন

সীতাকুণ্ডের বাড়বকুণ্ডে নিজের ঘর থেকে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার, স্বামী পালাতক

সীতাকুণ্ডের বাড়বকুণ্ডে নিজের ঘর থেকে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার

সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি: সীতাকুণ্ডে স্ত্রীকে গলায় ওড়না দিয়ে পেঁচিয়ে হত্যা করে পালিয়েছে স্বামী আরিফুল করিম রাকিব।

শনিবার রাত ১০টার সময় পুলিশ রিমা আক্তার (১৯) নামের এক গৃহবধুর লাশ উদ্ধার করে।

উপজেলার ৫নং বাড়বকুণ্ড ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ নড়ালিয়া গ্রামে এঘটনা ঘটে।

সীতাকুণ্ড মডেল থানার পুলিশ ঘরের বীমের সাথে গলায় ফাঁস দেওয়া ঝুলন্ত লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্যে চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

গৃহবধু রিমা আক্তার ঔই এলাকার ইউনিয়ন পরিষদের চকিদার আবুল কালামের কন্যা।

স্বামী আরিফুল করিম রাকিবের বাড়ি ১নং সৈয়দপুর ইউনিয়নের বাকখালী গ্রামে। তিনি বাড়বকুণ্ড এলাকায় বসবাস করতেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ একরাম হোসেন বলেন, স্বামী-স্ত্রী দুইজন একা একটা ঘরে বসবাস করতো, তাদের ৬মাস বয়সের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। সন্ধ্যায় মেয়েটিকে পাশের একটি বাড়িতে রেখে আসে স্বামী রাকিব। এরপর সে ঘরে এসে তার স্ত্রী রিমা আক্তারকে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে হত্যা করে লাশ বীমের সাথে ঝুলিয়ে দিয়ে পালিয়ে যায়।

রাতে শিশুকন্যটিকে নিয়ে রিমার বাবা আবুল কালাম ঘরে এসে দেখতে পান তার মেয়ের লাশ।

এসময় বিষয়টি পুলিশকে জানানো হলে লাশটি উদ্ধার করে।

ধারনা করা হচ্ছে স্বামী-স্ত্রী দুইজনের মধ্যে মনোমালিন্য নিয়ে রাকিব রিমাকে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাড়বকুণ্ড ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছাদাকাত উল্লাহ মিয়াজী। রিমা আক্তারের স্বামী আরিফুল করিম পেশায় একজন ট্রাক ড্রাইভার। বিয়ের পর থেকে রিমা আক্তারকে যৌতুকের জন্য মারধর করতে বলে জানান রিমার বাবা।

সীতাকুণ্ড মডেল থানার ওসি (তদন্ত) সুমন বনিক জানান ঘটনাস্থল থেকে গলায় ফাঁস দেওয়া এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চমেক হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।