নিউজটি শেয়ার করুন

সিআরবিতে প্রস্তাবিত হাসপাতালের সাইনবোর্ডে বঙ্গবন্ধুর ছবি আছে বলেই ঝুলছে – সুজন

না হয় তখনই এই সাইনবোর্ড ভেঙে চুরমার করতো নগরবাসী

সিআরবিতে প্রস্তাবিত হাসপাতালের সাইনবোর্ডে বঙ্গবন্ধুর ছবি আছে বলেই ঝুলছে

সিপ্লাস প্রতিবেদক: চট্টগ্রাম নগরীর ফুসফুস খ্যাত সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণের প্রতিবাদ সভায় চসিকের সাবেক প্রশাসক ও নগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন বলেন, চট্টগ্রামের ফুসফুস খ্যাত সিআরবিতে বিশেষায়িত ৫০০ শয্যার হাসপাতাল ও ১০০ আসনের মেডিকেল কলেজ নির্মাণের সাইনবোর্ডে শুধু বঙ্গবন্ধুর ছবি আছে বলেই এখনও ঝুলছে। না হয় তখনই এই সাইনবোর্ড ভেঙে চুরমার করতো নগরবাসী।

সিআরবিতে প্রস্তাবিত হাসপাতালের সাইনবোর্ডে বঙ্গবন্ধুর ছবি আছে বলেই ঝুলছে

সোমবার ( ১৯ জুলাই) বিকাল সাড়ে তিনটার সময় সিআরবি রক্ষায় ভিন্ন ধর্মী র‌্যালী শেষে প্রস্তাবিত হাসপাতাল নিমার্ণের সাইনবোর্ডের সামনে মাথায় গাছের পাতা বেঁধে কিছুক্ষণ গানে, আবার বক্তব্য দিয়ে চলে প্রতিবাদ সভা।

সিআরবিতে প্রস্তাবিত হাসপাতালের সাইনবোর্ডে বঙ্গবন্ধুর ছবি আছে বলেই ঝুলছে

তিনি আরও বলেন, আমরা জননেত্রী শেখ হাসিনার কর্মী। এই সিআরবিতে শহীদ আব্দুর রবের কবরস্থানসহ ৯ জন মুক্তিযোদ্ধার কবর এবং বধ্যভুমি রয়েছে। সুতরাং এখানে কোন দোকানদারকে ব্যবসা করতে দেওয়া হবে না। সিআরবি’তে প্রাইভেট হাসপাতালের বিরোধিতার এই আন্দোলন শুধুমাত্র শতবর্ষী গাছ রক্ষার আন্দোলন নয়। গাছের প্রসংগটি একটা মাত্র বিষয়। মূলত সিআরবি এলাকাটি আমাদের ইতিহাস ও ঐতিহ্যের অংশ।
বৃটিশ বিরোধী আন্দোলনের চিহ্ন এই সিআরবি, প্রাকৃতিক কারণে এটাকে চট্টগ্রামের ফুসফুস বলা হয়, যা অস্বীকার করার উপায় নাই। আর, চট্টগ্রামের মানুষদের এটুকু জায়গা মাত্র একটু নিঃশ্বাস নেয়ার। সব মিলিয়ে এই সিআরবিকে অক্ষত রাখা আমাদের সকলের নৈতিক দায়িত্ব।
সুজন বলেন, হাসপাতাল নির্মাণের নামে রেলওয়ে সিআরবি কে ধ্বংসের পাঁয়তারা করছে চট্টগ্রাম বিদ্বেষী একটি দুষ্টচক্র। আসাম বেঙ্গল রেলওয়ের হেডকোয়ার্টার ছিল এই সিআরবি। সিআরবি’র এই ঐতিহ্যকে ধ্বংস করার পাঁয়তারা চট্টগ্রামবাসী কখনো মেনে নেবে না।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, মসিউর রহমান, রুহুল আমিন তপন, সাইদুর রহমান, রাজনীতিবিদ আব্দুর রহমান মিয়া, হাজী মো. হোসেন, ফরহান, লিমন, মাসুম, শফিউল আজম বাহার, মাহাবুবুল হক সুমন, শওকত হোসাইন, মহানগর ছাত্রলীগ সভাপতি এম ইমরান আহমেদ ইমুসহ দল মত নির্বিশেষে চট্টগ্রামের সকল প্রকৃতিপ্রেমী নাগরিক সমাজ এ সমাবেশে উপস্থিত হয়।