নিউজটি শেয়ার করুন

সাশ্রয়ী কলরেটে বাংলাদেশি অ্যাপস “আলাপ”

সিপ্লাস ডেস্ক: ইন্টারনেট ব্যবহারকারী বা নেটিজেনদের মধ্যে আলোচনা এখন রাষ্ট্রীয় টেলিযোগাযোগ সংস্থা বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন কোম্পানি লিমিটেডের (বিটিসিএল) অ্যাপভিত্তিক কলিং সেবা ‘আলাপ’।  গত ৪ এপ্রিলে এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হলেও এরই মধ্যে গুগল প্লে স্টোর থেকে ১ লাখের বেশিবার অ্যাপটি ডাউনলোড করা হয়েছে।

জানা যায়, ব্যবহারকারী অ্যাপটি চালুর পর যে কোন নম্বরে ১৫ মিনিট ফ্রি কথা বলার সুযোগ পাবেন। এরপর ফোন কলে মিনিট প্রতি ৩০ পয়সা চার্জ প্রযোজ্য হবে। আর আলাপ নম্বরে রিচার্জ করা যাবে মোবাইলভিত্তিক অর্থ দেলদেন সেবা নগদ ও বিকাশ এর মাধ্যমে। এছাড়া ব্যাংকের ডেভিড বা ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করেও আলাপ নম্বরে রিচার্জ করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা।

এছাড়া প্রায় ৯ হাজার ব্যবহারকারী এর রিভিউ দিয়েছেন, যার বেশিরভাগই প্রসংসা সূচক মন্তব্য। অ্যাপটির অনেক ব্যবহারকারী আবার সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের ব্যক্তিগত একাউন্টের ‘আলাপ’ সেবা নিয়ে লেখালেখি করছেন। বিটিসিএল’র আলাপ অ্যাপ ডাউললোড করার পর প্রথমবার জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহার করে নিবন্ধন করে নিতে হয়। আর সফল নিবন্ধনের মাধ্যমে অ্যাপ ব্যবহারকারী পেয়ে যান একটি আইপি ফোন নম্বর। সেই নম্বরটি তার মোবাইল নম্বরের মতই কাজ করে। ওই নম্বর ব্যবহার করে অ্যাপের মাধ্যমে মিনিট প্রতি মাত্র ত্রিশ পয়সায় দেশের যে কোন টেলিফোন বা মোবাইলে কল করা যায়। এছাড়া আলাপ অ্যাপ ব্যাবহারকারীদের মধ্যে কলরেট একদম ফ্রি। তবে অ্যাপটি ব্যবহার করতে মোবাইলে ইন্টারনেট সংযোগ থাকতে হবে।

কল সেবা ছাড়াও হোয়াটস অ্যাপ বা ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারের মত অ্যাপটি দিয়ে ম্যাসেজ, ছবি, ভিডিওসহ লোকেশন শেয়ার করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা। অর্থাৎ এক অ্যাপের মধ্যেই কলসহ সকল সুবিধা নিয়ে এসেছে বিটিসিএল।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার গত ৪ এপ্রিল রবিবার ভার্চুয়ালি অ্যাপটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনের পর থেকে নেটিজেন বিশ্লেষকেরা এর পজিটিভ রিভিউ করছেন। বিশ্লেষকদের মতে, ডিজিটাল বাংলাদেশের নতুন ডিজিটাল সেবা উপহার দিয়েছে রাষ্ট্রিয় সেবা সংস্থা বিটিসিএল। শুধুমাত্র তারের টেলিফোনে সীমাবদ্ধ থাকেনি প্রতিষ্ঠানটি। টেলিটক সিম, উচ্চগতির জিপন ইটারনেট সংযোগ এর পর উপহার দিলো আলাপ অ্যাপ। এর মাধ্যম বোঝা যায় সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে চলছে বিটিসিএল।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, আলাপ অ্যাপের মাধ্যমে পরিষ্কার কথা শোনা যায়। একই সাথে মাত্র ৩০ পয়সা কলরেট হওয়ায় এই অ্যাপের জনপ্রিয়তা বাড়ছে। এটি ব্যবহারের মাধ্যমে দেশের টাকা দেশেই থাকবে।