নিউজটি শেয়ার করুন

শপিংমলে নেওয়া যাবে না শিশুদের

মো: মহিন উদ্দীন: মার্কেট-শপিংমলে শিশুদের না নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে চট্টগ্রামের ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দরা।

কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করেই আগামীকাল রবিবার (২৫ এপ্রিল) দোকানপাট খোলবে নগরীর ব্যস্ততম ও জনবহুল মার্কেট হিসেবে খ্যাত টেরিবাজার, রিয়াজউদ্দিন বাজার ও তামাকুমন্ডি লেইনসহ সকল মার্কেট।

স্বাস্থ্যবিধি না মানলে ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবেন বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দরা

টেরিবাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. আবদুল মান্নান বলেন, ‘২০২০ সালে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন ব্যবসায়ীরা। এবারও ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছি। সরকারি সিদ্ধান্ত মেনে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে ক্রেতা বিক্রেতা সবাইকে অনুরোধ করছি।’ দোকানে ব্যবসায়ী-কর্মচারীরা মাস্ক পরবে এবং ক্রেতাদের মাস্ক পরা ছাড়া দোকানে ঢুকতে দেবে না।

একই সঙ্গে প্রতিটি মার্কেট ও দোকানে স্যানিটাইজার নিশ্চিত করা হবে।’ সমিতির পক্ষ থেকে এসব নির্দেশনা কঠোরভাবে প্রতিপালন ও নির্দেশনা না মানলে দোকান বন্ধ করে দেওয়ার হুশিয়ারির কথাও জানান তিনি।

ভিআইপি টাওয়ার, শাহ আমানত মার্কেট ও মিমি সুপার মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির নেতারা বলেন, ‘ক্রেতা-বিক্রেতাদের মাস্ক পরা শতভাগ নিশ্চিত করা হবে। কোনো ব্যবসায়ী বা কর্মচারী মাস্ক না পড়লে মার্কেট থেকে বের করে দেওয়া হবে।’ মাস্ক ছাড়া কোনো ক্রেতা কেনাকেনার জন্য মার্কেটে না আসার অনুরোধ করেন তারা।

তারা আরও বলেন, মার্কেটে ঢোকার আগেই মাস্ক ও স্যানিটাইজার ব্যবহার নিশ্চিত করা হবে।

রিয়াজউদ্দিন বাজার তামাকুন্ডি লেন মোবাল ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ও তামাকুন্ডি লেন বণিক সমিতির যুগ্ন সম্পাদক আরিফুর রহমান সিপ্লাসকে বলেন, সরকারের নিষেধাজ্ঞা কঠোরভাবে মেনে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করেই দোকানপাট খোলা হবে।

মার্কেটে কোন শিশুকে না নেওয়ার জন্য আমরা প্রচার করছি। প্রয়োজনে আমরা লিফলেট করে প্রচার করব। এখানে শতাধিক মার্কেট আছে। প্রত্যেক মার্কেটে প্রত্যেক ব্যবসায়ীকে আমরা কঠোরভাবে বলেছি দোকানের ব্যবসায়ী ও কর্মচারীরা মাস্ক পরে ব্যবসা করেন।

নিজের নিরাপত্তার স্বার্থে ক্রেতা-বিক্রেতাদের মাস্ক পরা, স্যানিটাইজার ব্যবহারসহ স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। মার্কেটে ঢোকার সময় মাস্ক নিশ্চিত করা ও স্যানিটাইজার ব্যবহার নিশ্চিত করার জন্য মার্কেট কমিটির প্রতি অনুরোধ করেন।

এছাড়াও মার্কেটের প্রবেশপথেও হাত ধোয়ার জন্য পানির ব্যবস্থা করেছি।’ ২০ মিনিট পর পর দোকানে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করার জন্য বলা হয়েছে।

ব্যবসায়ী সমিতি, স্বেচ্ছাসেবক ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তায় তা নিশ্চিত করা হবে বলেও তিনি জানান।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান বলেন, ‘প্রজ্ঞাপনের বিষয়ে সকল মার্কেট কমিটিকে চিঠি দিয়ে স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনের বিষয়ে অনুরোধ করা হবে। এছাড়াও আমাদের মনিটরিং টিমতো আছেই। তারা সার্বক্ষণিক নজরদারি করবে।’

প্রসঙ্গতঃ গতকাল শুক্রবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ দোকান, মার্কেট ও শপিং মল খোলার বিষয়ে নির্দেশনা জারি করেছে। এতে বলা হয়েছে, যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন সাপেক্ষে আগামী ২৫ এপ্রিল থেকে দোকানপাট ও শপিংমল সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে।