নিউজটি শেয়ার করুন

রাঙ্গুনিয়ায় সংরক্ষিত আসনের উপনির্বাচনে সহিংসতায় প্রার্থীসহ আহত ৩

 রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধিঃ  রাঙ্গুনিয়া উপজেলার চন্দ্রঘোনা-কদমতলী ইউনিয়নের ৩ নম্বর সংরক্ষিত আসনের (৭, ৮, ৯ নম্বর) নির্বাচনে ভোট সংগ্রহ হয়েছে মাত্র ১৩.৮১ শতাংশ।

মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত এই ভোট গ্রহণ কার্যক্রম চলেছে। এদিন ৪ কেন্দ্রে মোট ভোটার ছিল ১০ হাজার ১৬১টি। তবে ভোট গ্রহণ হয়েছে মাত্র ১৪০৩টি। নির্বাচনে ৩ প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থীর মধ্যে জয়নাব বেগম (সূর্যমুখী ফুল) ৪৮৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার প্রতিন্ধী প্রার্থী ঝিনু আক্তার (মাইক) ৪৭৮ এবং নয়ন তালুকদার (বই) পেয়েছে ৩৮৭ ভোট।

এদিকে সকাল থেকে নির্বাচনের চারটি ভোট কেন্দ্র জেসি দাশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চন্দ্রঘোনা অদুদিয়া সুন্নিয়া মাদ্রাসা, বনগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং বনগ্রাম মাদ্রাসা ঘুরে দেখা গেছে, কেন্দ্রে ভোটারের উপস্থিতি একেবারে কম। সকালের দিকে কিছু কিছু ভোটারের উপস্থিতি দেখা গেলেও বিকালের দিকে অনেকটা ভোটারশূণ্য ছিল প্রতিটি কেন্দ্র। এদিকে নির্বাচন চলাকালীন শান্তিপূর্ণ ভোট গ্রহণ করা হলেও ফলাফল ঘোষণার পর প্রতিদ্বন্ধী দুই প্রার্থীর মধ্যে সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। এতে নির্বাচনের প্রার্থী ঝিুন আক্তার (৩২), তার স্বামী কামাল উদ্দিন এবং দেবর বেলাল উদ্দিন (৩৫) গুরুতর আহত হয়েছেন। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আহত বেলাল উদ্দিন জানায়, ভোটের ফলাফল শুনে বাড়ি ফেরার পথে চন্দ্রঘোনা নবগ্রাম এলাকায় প্রার্থী জয়নাব বেগমের অনুসারীরা তাদের উপর পরিকল্পিতভাবে হামলা চালিয়েছে। এতে তারা তিনজনই গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছেন। এই বিষয়ে তারা থানায় মামলা দায়ের করবেন বলে জানায় তিনি।

নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা অরুণ উদয় ত্রিপুরা জানায়, শান্তিপূর্ণভাবে এবং সুন্দর পরিবেশে ভোট গ্রহণ হয়েছে। যে সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে এটা ভোটের পরে হয়েছে।