নিউজটি শেয়ার করুন

মোবাইলে প্রেম, ধর্ষণের পর ছড়িয়ে দেওয়া হলো ভিডিও!

মোবাইলে প্রেম ধর্ষণের পর ছড়িয়ে দেওয়া হলো ভিডিও!

সিপ্লাস ডেস্ক: রাজশাহীর বাগমারায় প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে এক কিশোরীকে ধর্ষণের পর ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে করা মামলায় একজন গ্রেফতার করা হয়েছে। তার নাম সোহেল রানা লিটন (২৮)।

সোমবার দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, কিশোরীর সঙ্গে সোহেল মোবাইলে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে। একপর্যায়ে মেয়েটিকে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের ঘটনার ভিডিও ধারণ করে তা ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। কিশোরী এ ঘটনার পর সোহেলকে এড়িয়ে চলতে শুরু করে এবং ঘটনাটি তার পরিবারের সদস্যদের জানায়।

সোহেল ধর্ষণের ভিডিও ও মেয়েটির আপত্তিকর ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়। পরে রবিবার কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে ধর্ষণ ও পর্নোগ্রাফি আইনে থানায় মামলা করেন। ওই মামলায় পুলিশ সোহেলকে গ্রেফতার করে। সোমবার তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

স্থানীয় লোকজনের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, সোহেল রানা লিটন এলাকায় ফেসবুক লিটন হিসেবে পরিচিত। ফেসবুক নিয়ে ব্যস্ত থাকায় এলাকায় সে ছোট-বড় সবার কাছে এই নামে পরিচিত। এলাকায় বখাটে হিসেবে সে পরিচিত। স্কুল ও কলেজের মেয়েদের উত্ত্যক্ত করার অভিযোগে সামাজিকভাবে একাধিকবার সালিশও হয়েছে।

বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাক আহম্মেদ বলেন, লিটন তিনটি বিয়ে করেছে। দুই স্ত্রীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হওয়ার পর তৃতীয় স্ত্রীর সঙ্গে সংসার করছে। পুলিশ বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে তাকে গ্রেফতার করেছে। মামলার বিষয় আঁচ করতে পেরে সকালে সে রাজশাহী শহরে চলে যায়। পুলিশ তার পিছু নিলে সে ঘন ঘন স্থান পরিবর্তন করে। রাতে বাড়ি ফিরে এলে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।