নিউজটি শেয়ার করুন

মেডিকেল রিপ্রেজেন্টেটিভের আড়ালে ইয়াবার কারবারি

সিপ্লাস প্রতিবেদক: একটি ওষুধ কোম্পানির মেডিকেল রিপ্রেজেন্টেটিভ হিসেবে কাজ করেন নাসির উদ্দিন। তবে সারাদিন তিনি মেডিকেল রিপ্রেজেনটেটিভের বেশ ধরলেও বাস্তবে তিনি করেন ইয়াবা ব্যবসা। আবার ইয়াবা বিক্রির এসব টাকায় রোহিঙ্গাদের অস্ত্রের যোগানও দিচ্ছেন তিনি। চট্টগ্রামের আনোয়ারায় অভিযান চালিয়ে নাসির উদ্দিন (৪২) নামের এমনই একজন ইয়াবা কারবারিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার (২ জানুয়ারি) রাত সাড়ে নয়টায় আনোয়ারা থানা এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার (৫ নভেম্বর) একটি বিদেশি পিস্তলসহ দুইজনকে গ্রেপ্তার করে বাকলিয়া থানা পুলিশ। এরপর পুলিশ ওই অস্ত্রের উৎসের সন্ধানে নেমে জানতে পারে তারা দীর্ঘদিন ধরে কক্সবাজার টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ইয়াবা সংগ্রহ করে দেশের বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করতো। আবার ওই ইয়াবা বিক্রয়ের অর্থের বিনিময়ে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের অস্ত্র সরবরাহ করতো।

আরও জানা যায়, গ্রেপ্তার আসামি আব্দুর রাজ্জাক ও কামালের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত অস্ত্র মামলার তদন্তে নেমে পুলিশ তাদের সংঘবদ্ধ একটি ইয়াবা পাচারের সন্ধান পায়। তাদের ইয়াবা পাচারের নেটওয়ার্ক মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রান্তে বিস্তৃত। পরে ওই ইয়াবা পাচার চক্রের সদস্যদের গ্রেপ্তারে নেমে গত শুক্রবার (১৩ নভেম্বর) নগরীর নিউ চাঁদগাঁও আবাসিক এলাকার একটি বাসা থেকে ২২ হাজার ২০০ পিস ইয়াবা ও ৮ লাখ ৮৩ হাজার ৫০০ টাকাসহ মো. ফোরকান (৩০) ও তার স্ত্রী শামীম আরা সুমিকে (২৮) গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে আদালতে তাদের ১৬৪ ধারা জবানবন্দির তথ্যের ভিত্তিতে আনোয়ারা থানা এলাকা থেকে নাসির উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এই বিষয়ে বাকলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন বলেন, গ্রেপ্তার আসামিদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে আনোয়ারা থানা এলাকা থেকে ইয়াবা পাচার চক্রের মূল হোতা নাসিরকে গ্রেপ্তার করা হয়। সে অর্গানিক হেল্থ কেয়ার নামক একটি ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানিতে মেডিকেল রিপ্রেজেন্টিটিভ হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

তিনি আরও বলেন, সে মেডিকেল রিপ্রেজেন্টেটিভ চাকরিকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে দীর্ঘদিন ধরে ওষুধের ব্যাগের ভেতর করে সবার চোখ ফাঁকি দিয়ে ইয়াবা পাচার করে আসছিলেন। তাকে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করে বিজ্ঞ আদালতে পাঠানো হয়েছে।