নিউজটি শেয়ার করুন

মুভমেন্ট পাস নিয়ে বিড়ম্বনা, এ সম্পর্কে ধারণা নেই অনেকের

সিপ্লাস প্রতিবেদক: করোনা নিয়ন্ত্রণে আজ বুধবার থেকে চলাফেরায় শুরু হচ্ছে কঠোর বিধিনিষেধ। এর মধ্যে অতি জরুরি প্রয়োজনে যারা ঘর থেকে বের হবেন, তাদের নিতে হবে পুলিশের মুভমেন্ট পাস। এই মুভমেন্ট পাসকে কেন্দ্র করে জনমনে কিছু প্রশ্ন উঠেছে।

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মুভমেন্ট পাস ওয়েবসাইটটি উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ। ওয়েবসাইট চালুর পর সন্ধা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত ৬ লাখ হিট পড়েছে। ৬০ হাজার মানুষ মুভমেন্ট পাসের জন্য আবেদন সম্পূর্ণ করতে পেরেছেন। একই সময়ের মধ্যে প্রায় ৩০ হাজার মুভমেন্ট পাস দেয়া হয়েছে।

ওয়েবসাইট চালুর পরই আবেদনের হিড়িক পড়ে। অতিরিক্ত মানুষের হিটের কারণে ওয়েবসাইটের সার্ভার ডাউনের মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। আবেদন করতে গিয়ে অনেকে নানা বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছেন। কিছুক্ষণ পর পর ওয়েবসাইট অকার্যকর হয়ে পড়ছে। দীর্ঘক্ষণ চেষ্টার পর আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা যাচ্ছে। আবার সাধারণ মানুষের ধারণা নেই এ পাস সম্পর্কে।

পাশাপাশি জনমনে প্রশ্ন, যারা স্মার্ট ডিভাইস ব্যবহার করতে পারেন না, তারা কীভাবে মুভমেন্ট পাস গ্রহণ করবেন।

এ বিষয়ে ওয়েবসাইট উদ্বোধনকালে আইজিপি বলেন, দেশে সাড়ে ৭ কোটি ইন্টারনেট ব্যবহারকারী রয়েছে, চার কোটি ফেসবুক ইউজার, মোট ১১ কোটির বেশি মোবাইল ব্যবহারকারী। তাই যাদের বিশেষ প্রয়োজন তাদের না পারার কথা না। আর যারা পারবেন না, তারা সন্তান, আত্মীয়দের মাধ্যমে পাসটি করিয়ে নেবেন।

মুভমেন্ট পাসের প্রিন্ট কপি রাখতে হবে কিনা এমন প্রশ্নে পুলিশ সদর দপ্তরের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি-মিডিয়া) জানান, যাদের প্রিন্ট কপি রাখার সুযোগ থাকবে না তারা সফট কপি রাখতে পারেন, যা দেখে দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্যরা পাসটি যাচাই করবেন।

কাদের জন্য মুভমেন্ট পাস প্রয়োজন হবে এ প্রসঙ্গে আইজিপি সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, কিছু অত্যাবশ্যকীয় কাজে মানুষজনের বের হওয়ার প্রয়োজন হতে পারে। কাঁচাবাজারে যেতে হতে পারে, ঔষধ আনতে বের হতে পারেন, টিকার ডেট আছে, টিকা নিতে বের হতে পারেন। এসব কাজে বের হলে ওয়েবসাইট থেকে মুভমেন্ট পাস নিতে হবে। এমনকি অ্যাম্বুলেন্সে রোগীর যাওয়ার প্রয়োজন হলেও মুভমেন্ট পাস লাগবে।

গুরুতর অসুস্থ রোগীর ক্ষেত্রে পাস গ্রহণে সময় ব্যয় করার সুযোগ নাও থাকতে পারে– এমন পরিস্থিতিতে কী হবে জানতে চাইলে পুলিশ সদর দপ্তরের এক কর্মকর্তা বলেন, মুভমেন্ট পাস গ্রহণ করার জন্য অল্প সময়ের প্রয়োজন হবে। এটা থাকলে কোথাও পুলিশ আটকালে, পাসটি দেখিয়ে সহজেই তার গন্তব্যে পৌঁছাতে পারবেন। পাসটি ভেরিফাই করতে ৩০ সেকেন্ডের মতো সময় ব্যয় হবে। আর একই সঙ্গে অনেক মানুষ ওয়েবসাইটে ক্লিক করায় এই মুহুর্তে পাস নিতে কিছুটা সময় লাগছে। এই সমস্যাও দ্রুত সমাধানে কাজ চলছে।