নিউজটি শেয়ার করুন

বান্দরবানে শিশু নির্যাতনের অভিযোগে আইনজীবী দম্পতির বিরুদ্ধে মামলা

বান্দরবানে শিশু নির্যাতনের অভিযোগে আইনজীবী দম্পতির বিরুদ্ধে মামলা

বান্দরবান প্রতিনিধি: বান্দরবান শিশু গৃহকর্মীকে নির্যাতনের অভিযোগে এক উকিল দম্পতির বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) সকালে শিশুটির অভিভাবক রওশন আরা নামে এক নারী বাদী হয়ে বান্দরবান জজ কোর্টের উকিল সারাহ সুদীপা ইউনুছ ও তার স্বামী কোয়াটাম ফাউন্ডেশনের অর্গানিয়ার লিগাল এ্যাডভাইজার ফয়সাল আহমেদকে আসামী করে বান্দরবান সদর থানায় এই মামলা দায়ের করেন।

নির্যাতনের শিশুটির বাড়ী লামা উপজেলায়। বর্তমানে বান্দরবান শহরের হাফেজঘোনা এলাকায় রওশন আরা বেগমের আশ্রয়ে আছে ।

পুলিশ ও এজাহারসূত্রে জানা যায়, উকিল দম্পতির বাসায় ৭ মাস যাবৎ গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করে আসছিল শিশু জয়নাব আকতার জহুরা (৯)।

কাজে থাকাকালীন বিভিন্ন সময় কারণে অকারণে বাড়ীর কর্তা নির্যাতন করতেন শিশু গৃহকর্মী জয়নাব আকতারের উপর। এক পর্যায়ে নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে গত মঙ্গলবার (২০ জুলাই) সকালে অভিযুক্ত মানবাধিকার নেত্রী সারা সুদীপা ইউনুসের বাসা থেকে পালিয়ে যায় ভুক্তভোগী শিশুটি।

অনেক খোজাখুঁজির পর তাকে পাওয়া গেল গৃহকর্তা ফয়সাল স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলরের মাধ্যমে ওই গৃহকর্মীকে স্থানীয় অভিভাবক রওশন আরার কাছে দিয়ে আসে । পরে শিশুটির নির্যাতনের একটি বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে বিষয়টি প্রশাসনের নজরে আসে।

এজাহারে উল্লেখ আছে- শিশু গৃহকর্মীকে দিয়ে উকিল দম্পতির বাড়ীর কাপড় চোপড় ধোয়াসহ, ঘর ঝাড়ু মোছা, খাবারের প্লেট ধোয়া, কবুতরের কাচা পরিস্কার করানো ও কবুতরকে খাবার দেয়া, ফুলের টব পরিস্কার করা সহ বিভিন্ন কাজকর্ম করাইত। কিছুদিন আগে ফুলের টব পরিস্কার করতে গিয়ে টব ভেঙ্গে গেলে সারা সুদীপা ইউনুছ বাঁশের কঞ্চি দিয়ে শিশুটির বাম হাত পিটিয়ে জখম করে। এর কিছুদিন পর মশার কয়েল লাগাতে গিয়ে দেরি হওয়ায় জালানো কয়েল দিয়ে শিশুটির পেটে ছ্যাকা দেয়। এমনকি খাবার আনতে দেরি হওয়ায় শিশুটিকে দোতলা থেকে ফেলে মেরে ফেলবে বলেও হুমকি দেয়।

এ ঘটনায় ২২ জুলাই রওশন আরা ভিকটিমের পক্ষ হয়ে উকিল দম্পতির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করলে পুলিশ শিশুটিকে উদ্ধার করে বান্দরবান সদর হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও চিকিৎসার জন্য প্ররণ করে।

এদিকে নির্যাতনের বিষয়টি অস্বীকার করে অভিযুক্ত ফয়সাল আহমদ বলেন- এটি একটি ষড়যন্ত্র, আমাকে ও আমার স্ত্রীকে সামাজিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার লক্ষ্যে এই মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার বাদী রওশন আরা নিজও আমার বাসায় বুয়ার কাজ করত। একবার আমার বাসা থেকে টাকা চুরি করেছিল এবং ধরা পড়েছিল তারপর থেকে মেয়েটিকে আমার বাসা থেকে নিয়ে যেতে চেয়েছিল। আমি মেয়ের গার্জিয়ানকে নিয়ে আসতে বলায় সে আর আসেনি। ২০শে জুলাই মেয়েটি পালিয়ে যাওয়ার পর খুঁজে বের করে এলাকার মানুষের উপস্থিতে রওশন আরার জিম্মায় দিয়ে আসি।

বান্দরবান সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) ওসি মো.সোহাগ রানা বলেন, এক শিশু গৃহকর্মীকে নির্যাতনের অভিযোগে সদর থানায় সারা সুদীপা ইউনুস ও তার স্বামী ফয়সাল আহমদের নাম শিশু আইন একটি মামলা দায়ের হয়েছে। এই বিষয় তদন্তকরে পরর্বতী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।