নিউজটি শেয়ার করুন

বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হলেন দরিয়া নগরের কবি মূহম্মদ নূরুল হুদা

বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হলেন দরিয়া নগরের কবি মূহম্মদ নূরুল হুদা

কক্সবাজার প্রতিনিধি: পর্যটন রাজধানী কক্সবাজার তথা দরিয়ানগরের গর্বিত সন্তান প্রথিতযশা কবি, ঔপন্যাসিক, সাহিত্যিক, কথাশিল্পী ও হোমিওপ্যাথিক বিশেষঞ্জ মুহম্মদ নূরুল হুদাকে বাংলা একাডেমির নতুন মহাপরিচালক নিয়োগ দিয়েছে সরকার।

সোমবার (১২ জুলাই) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। যোগদানের দিন থেকে পরবর্তী ৩ বছর মেয়াদে তাকে বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক পদে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ মে মারা যান বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী। এর পর থেকে ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন একাডেমির সচিব এএইচএম লোকমান।

কবি মুহম্মদ নূরুল হুদার বর্ণাঢ্য কর্মময় জীবন- মুহম্মদ নূরুল হুদা, জাতিসত্ত্বার কবি, কথাশিল্পী, ডাক্তার ও সাংবাদিক জন্ম: ৩০ সেপ্টেম্বর ১৯৪৯, পোকখালী, ঈদগাঁও, কক্সবাজার। পিতা: হাজি মুহাম্মদ সেকান্দর। মা: আনজুমান আরা বেগম।

এসএসসি ১৯৬৫, ঈদগাঁও হাইস্কুল: কুমিল্লা বোর্ডের মানবিক বিভাগে মেধা তালিকায় দ্বিতীয় স্থান। এইচএসসি ১৯৬৭, ঢাকা কলেজ। বিএ অনার্স ১৯৭০, এমএ ১৯৭১, ইংরেজী ভাষা ও সাহিত্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। রিসার্স ইস্টার্ন (আর,আই), ইস্ট ওয়েস্ট সেন্টার, হনলুল হাওয়াই, আমেরিকা।

১৯৭১ সালে মক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহন করেন। মুক্তিযোদ্ধাদের সংগঠিত করে পৈত্রিক সম্পত্তি থেকে সহযোগিতা প্রদান করেন।

অধ্যাপনা: ইংরেজী বিভাগ, তালশহর কলেজ ব্রাহ্মণবাড়িয়া ১৯৭০-১৯৭১, শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ ১৯৭২ প্রভাষক, খন্ডকালীন, ইংরেজী বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

১৯৭৩ সালে বাংলা একাডেমীতে ২০০২ সালে প্রত্যাবর্তন করে একডেমীর পরিকল্পনা প্রশিক্ষণ ও পাঠ্যপুস্তক বিভাগের দায়িত্ব পালন করেন।

নজরুল ইরস্টিউট-এর নির্বাহী পরিচালক হিসাবে নজরুল জন্মশতবষির্কী উদযাপন জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব এবং দেশে-বিদেশে নজরুল চর্চা ও প্রসারে ব্যাপক ভূমিকা পালন করেন।

বাংলা একাডেমি আয়োজিত একুশে বই মেলার সদস্য সচিব হিসাবে একাধিকবার সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেন।

২০০৬ সালে তিনি বাংলা একডেমীর অন্যতম পরিচালক হিসাবে অবসরকালিন ছুটি (এলপিআর) গ্রহণ করেন।

সাহিত্যচর্চা প্রাশাসনিক দায়িত্বের পাশাপাশি দেশের একজন শীর্ষস্থানীয় হোমিও চিকিৎসক হিসাবে খ্যাত। ঢাকা ও কক্সাবজার ঈদগাঁওতে নিজস্ব চেম্বারে জটিল রোগীদের চিকিৎসা করেন।

প্রতিষ্ঠাতা সাহিত্য সম্পাদক : উর্মিমালা সাহত্য সংসদ (১৯৬৫) ঈদগাঁও কক্সবাজার। সংসদের মুখপত্র হিসাবে জেলার প্রথম সাহিত্য সাময়িকী কলতান (১৯৬৫) সম্পাদনা। ৬০ এর দশকে ঢাকায় লেখক সংগ্রাম শিবির প্রতিষ্ঠায় অন্যতম ভূমিকা পালন করেন।

স্বাধীনতার পরে লেখক সংগ্রাম শিবির বাংলাদেশ লেখক শিবির নামে প্রতিষ্ঠিত হলে তিনি এর অন্যতম আহবায়ক নির্বাচিত হন। পরে তিনি বাংলাদেশের লেখকদের প্রতিনিধিত্বশীল সংগঠন বাংলাদেশ রাইটার্স ক্লাব এর আন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ও সাধারণ সম্পাদক, র্বর্তমানে এর সভাপতি।

প্রতি বছর ৩১ডিসেম্বর বিশ্ব লেখক দিবস এর প্রবক্তা হিসাবে দেশে বিদেশে ব্যাপক আলেচিত। এছাড়া তিনি তৃণমূলীয় লোক সাহিত্যও সংস্কৃতির সন্ধান সংরক্ষণ ও মুল্যায়নে গঠিত প্রতিষ্ঠাতা ও কেন্দ্রিয় পরিচালক।

প্রকাশিত কাব্য : শোণিতে সমুদ্রপাত (১৯৭২) আমার সশস্ত্র শব্দবাহিনী (১৯৭৫) শেভাযাত্রা দ্রাবিড়ার প্রতি (১৯৭৫) অগ্নিময়ী হে মৃম্ময়ী(১৯৮০) আমরা তামাটে জাতি (১৯৮১) শুক্লা শকুন্তকলা (১৯৮০) নির্বাচিত কবিতা(১৯৮৫) যিসাস মুজিব(১৯৮৫) হনলুলু ও অন্যান্য কবিতা (১৯৮৭) কুসুমের ফণা (১৯৮৮)বারো বছরের গল্প (১৯৮৮) এক জনমে লক্ষ(১৯৮৮) গালেবের কছে ক্ষমা প্রার্থনা (১৯৮৯) আমি যদি জলদাস তুমি জলদাসী(১৯৯০) হ্যামিলনের রাজা (১৯৯০) তেলাপোকা (১৯৯০) জাতিসত্তার কবিতা (১৯৯২) প্রিয়াংকার জন্য পঙক্তিমালা (১৯৯২) ভিনদেশী প্রেমের কবিতা (১৯৯৩) অরক্ষিত সময় (১৯৯৩) প্রেমের কবিতা (১৯৯৪) দিগন্তের খোসা ভেঙ্গে(১৯৯৪) ভালোবাসার বুক পকেটে(১৯৯৪) lesbian clouds and other poems (১৯৯৪) আমার কপালে ও সময়ের ভাই ফোটা ১৯৯৫) প্রিয় পঙক্তিমালা (১৯৯৬) মুজিব বাড়ী (১৯৯৬) দেখাহলে একা হয়ে যাই (১৯৯৮) সিকোরাক্স (১৯৯৮) আমার চুড়ান্ত শব্দ ভালবাসা (১৯৯৮) আদিষ্ট হয়েছি আমি দীর্ঘ জাগড়নে (১৯৯৯) স্মৃতিপুত্র (২০০০) হাজার কবিতা(২০০০) কাব্য সমগ্র(২০০১) দারিয়ানগর কাব্য(২০০১) selected poesms (২০০৩) পদ্মাপড়ের ঢেউ সোওয়ার (২০০৪) পূন্য বাংলা সুর স্বর (২০০৫) কোরান কাব্য (২০০৫) সময় মাড়ানোর গল্প (২০০৬)।

প্রবন্ধ গ্রন্থ : শর্তহীন শর্তে (১৯৮১) লক্ষন সংহিতা (১৯৮২) মহানবী (১৯৮৩) সার্ত্র অন্যান্য প্রসঙ্গ (১৯৮৩) flaming flowers:poet Response to the emergence of bangladesh (১৯৮৬) রবীন্দ্র প্রকৃতি ও অন্যান্য প্রসঙ্গ (১৯৮৬) সৃজনশীলতা অন্যান্য প্রসঙ্গ (১৯৯৮) নান্দনিক নজরুল (২০০২), Nazrul’s Aesthetics and other Aspects (২০০১)

উপন্যাস :জন্ম জাতি (১৯৯৪),বাস্তাহারা (১৯৯৪), মৈন পাহাড় (১৯৯৫) রোমিও জুলিয়েট(১৯৯৮) নীল সমুদ্রের ঝড় (১৯৯৮)।

নাটক : মৈন কুমার ও তামাটে কিশোর (১৯৯৮)।

ভ্রমন কাহিনী :মনপবনের নাও (২০০৪)

অনুবাদ : পরিবর্তনের পথে (১৯৭২) আগামেনন(১৯৮৭) ইউনুস এমরের কবিতা (১৯৯২) IN BLISSFUL HELL (১৯৯৩) ফ্লেনারী ও কনরের গল্প (১৯৯৭) WEDDING AND WILD KITI (২০০১), HASAN RAJA (SUBTITLE FLIM, ২০০১)

শিশুতোষ : বাংলা একাডেমী ছড়ায় বর্ণমালা (১৯৯৪), প্রাণের মিনার শহীদ মিনার শহীদ মিনার (১৯৯৪), স্বাধীনতার ছড়া (২০০১), পাখির ছড়া (২০০১), রূপকতার কাব্য : সাত ভাই চম্পা (২০০১), রাজার পোশাক (২০০১), চাঁদের বুড়ো চাঁদের বুড়ি (২০০১), ব্যাঙকুমার (২০০১), ছোটদের নজরুল জীবনী (২০০১), ছোটদের রবীন্দ্র জীবনী (২০০১), ছোটদের বেগম রোকেয়া (২০০১), ছোটদের জীবনানন্দ দাশ (২০০১), ছোটদের মাইকেল মধুসূদন দত্ত (২০০১)।