নিউজটি শেয়ার করুন

প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে চট্টগ্রাম নগর যুবলীগের কোন্দল স্পষ্ট

সিপ্লাস প্রতিবেদক: বাংলাদেশ যুবলীগের ৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ছিল আজ বুধবার।

আর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে সারাদেশের ন্যায় চট্টগ্রামে ত্রি-মাত্রিক কর্মসুচি পালিত হয়েছে। আর যেখানে নগর যুবলীগের কোন্দল আর সমন্বয়হীনতার বিষয়টি ছিল অনেকটা স্পষ্ট।

এবার প্রতিষ্টাবার্ষিকী উৎযাপন অনুষ্টানে আশ্চর্যজনক ভাবে চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের একই ব্যানারে ভিন্ন ভিন্ন জায়গায় পালিত হয়েছে দিবসটি।

একদিকে নগর যুবলীগের আহবায়ক মহিউদ্দিন বাচ্ছুর অনুষ্টান ছিল কাজীর দেউডী ইন্টারন্যাশনাল কনেভনশন হলে। অন্যদিকে যুগ্ন আহবায়ক ফরিদ মাহমুদ, দেলোয়ার হোসেন খোকা, মাহবুবুল হক সুমনরা মিলে নগরীর মোটেল সৈকতে আর অপরদিকে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সাবেক সদস্য দেবাশীষ পাল দেবু চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের বঙ্গবন্ধু হলে কেক কেটে উদযাপন করে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর অনুষ্টান।

তবে বাংলাদেশ যুবলীগের ৪৮ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে চট্টগ্রামের যুবলীগ নেতারা ত্রি-মুখি কর্মসুচি পালন করলেও চট্টগ্রামের কোন মন্ত্রী ও সংসদ সদস্য এতে উপস্থিত ছিলেন না।

এছাড়া নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি কিংবা সাধারন সম্পাদক কাউকে দেখা যায়নি কোন সভায় যোগ দিতে।

নগরীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন হলে সভাপতির বক্তব্যে মহিউদ্দনি বাচ্চু বলেন, একটি মহল নগর যুবলীগে বিভাজন সৃষ্ঠি কারার ষড়যন্ত্র করছে। তবে চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগ সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর নেতৃত্বে এক্যবদ্ধ ছিলাম, ভবিষ্যতেও থাকবো।

তবে একই ব্যনারে ভিন্ন ভিন্ন জায়গায় কর্মসুচি পালনের বিষয়ে জানতে চাইলে যুগ্ন আহবায়ক ফরিদ মাহমুদ জানান, যুবলীগ একটি বিহৎ সংগঠন। যাদের দলের মধ্যে প্লাটফর্ম নেই তারাই ভিন্নভাবে পালন করছে এসব কর্মসূচি। সিনিয়রদের কারও সাথে ব্যক্তিগত কোন কোন্দল নেই বললেন কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক এই সদস্য ।

মুলত ২০১৩ সালের ১৩ জুলাই মহিউদ্দিন বাচ্চুকে আহ্বায়ক করে চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের ১০১ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় কমিটি। তিন মাসের জন্য গঠিত এই আহ্বায়ক কমিটির বয়স বর্তমানে সাড়ে ছয় বছর পার হলেও এখনও চলছে তেমনি। অভিবাবকহীন এই সংগঠনটিতে কারা এখন আসল যুবলীগ তা নিয়ে উঠছে নানান প্রশ্ন।