নিউজটি শেয়ার করুন

প্যারাগুয়ে হারিয়ে সবার আগে কোয়ার্টার-ফাইনাল নিশ্চিত করলো আর্জেন্টিনা

সিপ্লাস ডেস্ক: ম্যাচের আগে লিওনেল স্কালোনি বলেছিলেন, প্যারাগুয়ে খুব অস্বস্তিকর ও কঠিন প্রতিপক্ষ । আর্জেন্টিনা কোচের কথার প্রমাণ ম্যাচ জুড়ে দিয়েছে দলটি। কিন্তু এবার এড়াতে পারেনি হার। আলেহান্দ্রো গোমেসের শুরুর গোলে জিতে সবার আগে কোয়ার্টার-ফাইনাল নিশ্চিত করেছে আর্জেন্টিনা।

ব্রাসিলিয়ার মানে গারিঞ্চা স্টেডিয়ামে ‘এ’ গ্রুপের ম্যাচে ১-০ গোলে জিতেছে দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। সব মিলিয়ে চার ম্যাচ পর প্যারাগুয়েকে হারাতে পারল তারা।

দ্বিতীয়ার্ধে আক্রমণাত্মক ফুটবলে আর্জেন্টিনাকে চেপে ধরে প্যারাগুয়ে। কিন্তু গোলের তেমন কোনো সুযোগ তৈরি করতে পারেনি তারা। গোলের উদ্দেশে তাদের কেবল দুটি শট ছিল লক্ষ্যে।

উরুগুয়েকে ১-০ গোলে হারানো দলে ছয় পরিবর্তন আনা আর্জেন্টিনাই পায় প্রথম ভালো সুযোগ। অষ্টম মিনিটে হেড করতে গিয়ে পরস্পরের সঙ্গে ধাক্কা খান প্যারগুয়ের রবের্ত পিরিস ও গুস্তাভো গোমেস। পেনাল্টি স্পটের কাছে আলগা বল পেয়ে যান সের্হিও আগুয়েরো। তবে শট লক্ষ্যে রাখতে পারেননি এক বছরের বেশি সময় পর শুরুর একাদশে ফেরা এই স্ট্রাইকার।

গোলের জন্য বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি আক্রমণাত্মক শুরু করা আর্জেন্টিনার। দশম মিনিটেই এগিয়ে যায় তারা। লিওনেল মেসির কাছ থেকে বল পেয়ে আনহেল দি মারিয়া খুঁজে নেন গোমেসকে। বাকিটা অনায়াসে সারেন সেভিয়ার এই ফরোয়ার্ড।

অষ্টাদশ মিনিটে গোল প্রায় পেয়েই যাচ্ছিলেন মেসি। বার্সেলোনা তারকার ফ্রি কিক একটুর জন্য থাকেনি লক্ষ্যে।

ধীরে ধীরে নিজেদের গুছিয়ে নিয়ে পাল্টা আক্রমণে যায় প্যারাগুয়ে। তবে গোলরক্ষক এমিলিয়ানো মার্তিনেসের তেমন কোনো পরীক্ষা নিতে পারেনি তারা।

৪২তম মিনিটে মেসির ফ্রি কিকে বল পান দি মারিয়া। তার ক্রসে হেরমান পেস্সেইয়ার হেড লক্ষ্যেই ছিল কিন্তু ছিল না জোর। সহজেই নিয়ন্ত্রণে নেন প্যরাগুয়ে গোলরক্ষক।

যোগ করা সময়ে দি মারিয়ার শট ঝাঁপিয়ে ঠেকান তিনি। কিন্তু বিপদমুক্ত করতে পারেননি। গোমেসের ক্রস ঠেকাতে গিয়ে উল্টো নিজেদের জালে পাঠিয়ে দেন জুনিয়র আলনসো। কিন্তু অফসাইডের জন্য গোল পায়নি আর্জেন্টিনা।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে রক্ষণে নিজেদের কিছুটা গুটিয়ে নেয় তারা। প্রচুর জায়গা পাওয়া প্যারাগুয়ে বল দখলে রেখে চেপে ধরে তাদের।

এক পর্যায়ে টানা চারটি কর্নার পায় প্যারাগুয়ে। কিন্তু একবারও মার্তিনেসের পরীক্ষা নিতে পারেনি তারা। ফরোয়ার্ডদের ব্যর্থতায় আর্জেন্টিনার রক্ষণে গিয়ে খেই হারায় তাদের প্রায় সব আক্রমণ।

 

প্রতি আক্রমণে ভীতি ছড়াতে পারেনি আর্জেন্টিনা। জাল অক্ষত রেখে কোয়ার্টার-ফাইনাল নিশ্চিত করার দিকেই ছিল তাদের সব মনোযোগ।

দেশের হয়ে হাভিয়ের মাসচেরানোর সর্বোচ্চ ১৪৭ ম্যাচ খেলার রেকর্ড স্পর্শ করার দিনে শেষ দিকে গোলের একটি সুযোগ পেয়েছিলেন মেসি। তবে তার ফ্রি কিক ফিরিয়ে দেন প্যারাগুয়ের গোলরক্ষক।

৩ ম্যাচে দুই জয় ও এক ড্রয়ে ৭ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে উঠে এলো আর্জেন্টিনা। বলিভিয়াকে ৩-১ গোলে হারিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করা প্যারাগুয়ের এটি প্রথম হার। ৩ পয়েন্ট নিয়ে নিয়ে দলটি আছে তিন নম্বরে।

উরুগুয়ের বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করা চিলি ৫ পয়েন্ট নিয়ে আছে দুই নম্বরে। ১ পয়েন্ট নিয়ে চারে কোপা আমেরিকার সফলতম দল উরুগুয়ে।