নিউজটি শেয়ার করুন

নির্বাচনে আচরণ বিধি ভঙ্গের জন্য কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থককে জরিমানা

সিপ্লাস প্রতিবেদক:  চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গের দায়ে এক কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থককে ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া কিছু ব্যানার পোস্টার নামিয়ে ফেলে প্রার্থীদের সতর্ক করা হয়।

বৃহস্পতিবার জেলা প্রশাসনের ৮ জন ম্যাজিস্ট্রেট ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেছেন।

নগরীর ৯, ১০ ও ১৩ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ডে এ নির্বাচনী আচরণবিধির মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। মোবাইল কোর্ট পরিচালনাকালে ‘সিটি কর্পোরেশন (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬’ ভঙ্গ করে ব্যানার ও পোস্টার লাগানোয় স্থানীয় বাসিন্দাদের সহযোগিতায় সেগুলো নামিয়ে ফেলা হয় এবং প্রার্থীদের টেলিফোনে মৌখিকভাবে সতর্ক করা হয়।

নগরীর ২৮, ২৯ ও ৩৬ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ড এবং সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড-১১ এ নির্বাচনী আচরণবিধি প্রতিপালন নিশ্চিত করতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়েছে। মোবাইল কোর্ট পরিচালনাকালে ২৯ নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদপ্রার্থী আজিজ উর রশিদের পক্ষের এক সমর্থককে ‘সিটি কর্পোরেশন (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬’ এর ৮(৮) ধারা লঙ্ঘন করে যানবাহনে পোস্টার সাঁটানোর দায়ে ৩১(১) ধারায় ৫০০ টাকা অর্থদ- প্রদান করা হয়। এসময় কয়েকজন প্রার্থীকে নির্বাচনী আচরণ বিধিমালা মেনে প্রচারণা চালাতে সতর্ক করা হয়।

এছাড়া নগরীর ১৪, ১৫ ও ২১ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ডে (সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড-০৫), ৩৩, ৩৪ ও ৩৫ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ডে (সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড-১৩), ১১, ২৫ ও ২৬ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ডে (সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড-১০), ১৬, ২০ও ৩২ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ডে (সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড-৭), ৩৯, ৪০ ও ৪১ নং সাধারণ ওয়ার্ড, এবং ২৭,৩৭,৩৮ নং ওয়ার্ড, ২২, ৩০ ও ৩১ নং সাধারণ ওয়ার্ডে, নির্বাচনী আচরণবিধির মনিটরিং করতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। কিন্তু এসব ওয়ার্ডে মোবাইল কোর্ট পরিচালনাকালে ‘সিটি কর্পোরেশন (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬’ ভঙ্গের কোন ঘটনা পরিলক্ষিত হয়নি।

মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস.এম. আলমগীর, সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. উমর ফারুক, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. জিল্লুর রহমান, সহকারী কমিশনার ভূমি ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুজন চন্দ্র রায়, সহকারী কমিশনার ভূমি ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এহসান মুরাদ, এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট রেজওয়ানা আফরিন, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী, সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুরাইয়া ইয়াসমিন।