নিউজটি শেয়ার করুন

জিয়ার আইনেই হাসিনা আ.লীগের সভানেত্রী: রিজভী

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।ফাইল ছবি।
আওয়ামী লীগকে ‘মিথ্যার কোম্পানি’ হিসেবে আখ্যায়িত করে শেখ হাসিনাকে তার চেয়ারম্যান বলেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

আশরা উপলক্ষে দলের মঙ্গলবার নয়া পল্টনের দলীয় কার্যালয়ে মঙ্গলবার দোয়া মাহফিলের আগে আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি বলেন, “আওয়ামী লীগ একটি মিথ্যার কোম্পানি। সেই কোম্পানির বিজ্ঞাপনী ম্যানেজার সেজেছেন ওবায়দুল কাদের ও সহকারী বিজ্ঞাপনী ম্যানেজার হচ্ছেন তাদের তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। এই মিথ্যা কোম্পানির চেয়ারম্যান স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী। ”

গত রোববার সংসদ অধিবেশনে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানকে নিয়ে দেওয়া শেখ হাসিনার বক্তব্যের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, “আপনার প্রতিটি পদক্ষেপ হচ্ছে হিংসা ও বিদ্বেষ ছড়ানো আর কুৎসা রটানো। আপনি যে আজকে আওয়ামী সভানেত্রী, এটা তো জিয়াউর রহমানের দান।

“আপনি আওয়ামী লীগের সভানেত্রী থাকতে পারতেন না যদি সেদিন রাষ্ট্রপতি পদে থেকে জিয়াউর রহমান আইন করেছিলেন ‘পিপলস পলিটিক্যাল পার্টি রেগুলেশন’। সেখানে দরখাস্ত করে আওয়ামী লীগ বাকশাল থেকে নতুন করে আওয়ামী লীগ হল। সেই আওয়ামী লীগের সভানেত্রী আপনি। আর আপনি বলেন, জিয়াউর রহমান রাষ্ট্রপতি এটি নাকি অবৈধ ছিল।”

জিয়াউর রহমান ও এইচএম এরশাদের ক্ষমতা দখলকে অবৈধ ঘোষণা করে আদালতের রায়ের কথা তুলে ধরে গত রোববার সংসদে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, তাদের রাষ্ট্রপতি হিসেবে উল্লেখ করা ‘বৈধ নয়’।

রিজভী বলেন, “এই দেশের মালিক জনগণ। তারা বুঝতে পারছে তাদের ভোটাধিকার, তাদের কথা বলার স্বাধীনতা, তাদের খবরের কাগজ পড়ার স্বাধীনতা, তাদের চলাচলের স্বাধীনতা- এটা হরণ করেছে আওয়ামী লীগের এই ডাকাত সরকার। শেখ হাসিনাকে বললে তো এটা অস্বীকার করবেন। এটা স্বাভাবিক, কারণ তারা নিজেরাই ডাকাতি করছে। তারা যে ডাকাতি করছে, তারা যে গণতন্ত্র হত্যা করছে, তারা কি জিয়াউর রহমান সম্পর্কে ইতিবাচক কথা বলবে? কখনই বলবে না।

“কারণ জিয়াউর রহমানকে স্বীকৃতি দিলে তারা যে হত্যাকারী- এটা তো প্রতিষ্ঠিত হয়ে যায়। সেজন্য তারা এসব মিথ্যা কথা বলেন। বাকশাল করেছিল কে, গণতন্ত্র হত্যা করেছিল কে, সংবাদপত্র বন্ধ করেছিল কে, কথা বলার স্বাধীনতা বন্ধ করেছিল কে, রাজনৈতিক দলগুলোকে বন্ধ করেছিল কে? এসমস্ত হত্যাকারী এই আওয়ামী লীগ। তারাই বাকশাল করে এসব বন্ধ করেছিল।”

বিএনপির উদ্যোগে এই দোয়া ও আলোচনা সভা হয়। এতে জিয়াউর রহমানের আত্মার মাগফেরাত, কারাবন্দি অসুস্থ খালেদা জিয়া ও লন্ডনে অবস্থারত দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের জন্য বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

জাতীয়তাবাদী উলামা দলের আহ্বায়ক মাওলানা শাহ নেছারুল হকের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় সদস্য সচিব মাওলানা নজরুল ইসলাম তালুকদারসহ উলামা দলের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।