নিউজটি শেয়ার করুন

জাতীয় পার্টির শাসনামলই ছিল উন্নয়নের স্বর্ণ যুগ

কক্সবাজার ব্যুরোঃ  জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক সাংসদ মোহাম্মদ ইলিয়াছ বলেছেন, পল্লীবন্ধু হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টির শাসনামলই ছিল উন্নয়নের স্বর্ণ যুগ।

গণতন্ত্রের স্বার্থে সংঘাত ও সাংবিধানিক পরিস্থিতি উত্তরনে সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদ স্বেচ্ছায় ক্ষমতা হস্তান্তর করে দৃষ্টান্ত গড়লেও সে সময়ের গণতন্ত্রের ধ্বজাধারীরা ৯বছরের সফল এ শাসককে অন্যায় ভাবে করেছিল কারান্তরীন।

শুধু তাই নয় সারাদেশে জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীদের উপর চালিয়েছিল নির্যাতনের স্টীম রোলার। কিন্তু ইতিহাসের অমেয় বাণীর মতো সেই দু’নেত্রীকেও হতে হয়েছিল কারান্তরীন।

শুক্রবার ( ৮জানুয়ারী) বিকালে পেকুয়া উপজেলা জাতীয় পার্টির দ্বি-বার্ষিক কাউন্সিল ও আলাচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি এ সময় প্রধানমন্ত্রীর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় মাতারবাড়ি গভীর সমুদ্র বন্দর ও পেকুয়ার মগনামায় বানৌজ শেখ হাসিনা ঘাঁটিসহ উন্নয়ন মুলক বিভিন্ন প্রকল্পের প্রশংসা তুলে ধরেন।

চকরিয়া পেকুয়ার বর্তমান সাংসদের ব্যর্থতার কথা তুলে ধরে কঠোর সমালোচনা করে তিনি বলেন, চকরিয়া-পেকুয়ার উন্নয়ন অগ্রগতি নিশ্চিতে গ্রামীন জনপথে তেমন কোন উন্নয়নরে ছোয়া লাগাতে পারেনি বর্তমান সাংসদ। শুধু নিজের জন্য দিন দিন অর্থ ও সম্পদের পাহাড় করে যাচ্ছে। তাঁর এই ব্যর্থতার জবাব আগামী দ্বাদশ নির্বাচনে চকরিয়া-পেকুয়ার মানুষ দেবে।

বিগত পাঁচ বছরে আমি চকরিয়া-পেকুয়ার সংসদীয় আসনে ব্যাপকভাবে বহুমূখী উন্নয়ন করেছি। পেকুয়া সমবায় কমিনিউটি সেন্টারে পেকুয়া উপজেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক এম দিদারুল করিমের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব সাজ্জাদুল ইসলাম এবং শাহাদাত হোসেনের যৌথ পরিচালনায় অনুষ্টিত সম্মেলন ও কাউন্সিল অধিবেশনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কক্সবাজার জেলা মহিলা পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আসমাউল হুসনা, চকরিয়া উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি ও ডুলহাজারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল আমিন, সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, পৌরসভা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, পেকুয়া উপজেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম আহবায়ক, সাবেক সভাপতি দেলোয়ার করিম চৌধুরী ও যুগ্ম সচিব শাহেদুল ইসলাম, জাপা নেতা জামাল উদ্দিন, সদর ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইলিয়াছ, কামাল হোসেন, জয়নাল আবেদীন, মহি উদ্দিন, অলি উল্লাহ, মোঃ দিদারুল ইসলাম, রাজাখালী ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির রেজাউল করিম, মোঃ সেলিম, বেলাল উদ্দিন, উজানটিয়া ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি আবু বক্কর, মগনামা ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি মোঃ আলমগীর সওদাগর, সাধারণ সম্পাদক মহি উদ্দিন, শিলখালী ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি আবু তাহের এমইউপি, বারবাকিয়া ইউনিয়ন জাপার সভাপতি আবু জাফর, নেতা শাহাদাত হোসেন, মোঃ রফিক, আব্দুল খালেক, টইটং ইউনিয়ন জাপা নেতা সরওয়ার আলম, জাতীয় ছাত্র সমাজের সভাপতি আরমান বিন কাশেম, চকরিয়া জাতীয় মহিলা পার্টির সভাপতি সজরুন্নাহার বুলু, সাধারণ সম্পাদক জোসনা আকতার, পেকুয়া মহিলা জাতীয় পার্টির সভানেত্রী আমাতুর রহিম হিরা, শাহেনা আকতার, কমরুন্ন্ছো, প্রমুখ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, পেকুয়া উপজেলা জাতীয় পার্টি, যুব সংহতি, ছাত্র সমাজ, জাতীয় মহিলা পাটি ও অন্যান্য সহযোগী সংগঠনের উপজেলা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ের শত শত নেতাকর্মীরাও উপস্থিত ছিলেন। সম্মেলনে সাবেক সাংসদ মোঃ ইলিয়াছ, কক্সবাজারের জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আসমাউল হুসনা, জেলা পরিষদের সদস্য রেহেনা খানম রাহু ও ডুলহাজারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল আমিন কে সংবর্ধিত করা হয়। শেষে এম দিদারুল করিমকে উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি ও সাজ্জাদুল ইসলামকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষনা করা হয়।