নিউজটি শেয়ার করুন

চসিক নির্বাচন: একদিনে সর্বোচ্চ নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক: চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ভোট গ্রহনের দিন ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে বাড়ছে নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গের অভিযোগের সংখ্যা। পাশাপাশি নির্বাচনী সহিংসতা দিনে দিনে বেড়েই চলছে।

শনিবার (১৬ জানুয়ারি) একদিনে নির্বাচন অফিসে বিভিন্ন প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গের অভিযোগ এসেছে ৬টি। যা এপর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ অভিযোগ বলে রিটার্নিং কর্মকর্তার অফিস সুত্রে জানা যায়।

বিএনপি মনোনীত মেয়রপ্রার্থী ডা. শাহাদাতের পক্ষে তার একান্ত সচিব মারুফুল হক চৌধুরী পৃথক ৩টি অভিযোগ এনেছেন।

অভিযোগ তিনটি হলো:

  • ২৩ নং উত্তর পাঠানটুলি ওয়ার্ডে মেয়রপ্রার্থী ডা. শাহাদাত ও কাউন্সিলর প্রার্থী মোহা: মহসীনের নির্বাচনী পোস্টার লাগানোর সময় কর্মীদের উপর আতর্কিত হামলা ও পোস্টার ছিড়ে ড্রেনে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ এনেছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থীর বিরুদ্ধে।
  • ২৫ নং রামপুরা ওয়ার্ডে মেয়রপ্রার্থী ডা. শাহাদাত ও কাউন্সিলর প্রার্থীর পোস্টার লাগানোর সময় কর্মীদের উপর আতর্কিত হামলা ও পোস্টার ছিঁড়ে ৮/১০ রাউন্ড ফাঁকা গুলিবর্ষণ করে এলাকায় ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করা ও কর্মীদের হত্যার হুমকির অভিযোগ এনেছেন প্রতিদ্বন্দী কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থিত কর্মী সাইফুল ইসলাম পলাশের বিরুদ্ধে।
  • ১৮ নং পূর্ব ও ১৯ নং দক্ষিন বাকলিয়া ওয়ার্ডে বিএনপি প্রার্থীর প্রচারণায় বাঁধা, পোস্টার ছেঁড়া ও পোস্টার ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ এনেছেন প্রতিদ্বন্দী প্রার্থীর সমর্থক জনৈক জাহেদ ও পলাশের বিরুদ্ধে।

অন্যদিকে

  • ৬ নং পূর্ব ষোলশহর ওয়ার্ডের বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী মো: হাসান লিটন ও তার ছোট ভাই মো: হোসেন খোকনের বিরুদ্ধে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীর লিফলেট, পোস্টার ছেড়াঁ ও আতর্কিত হামলার অভিযোগ এনেছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী এম. আশরাফুল আলম।
  • ১১ নং দক্ষিন কাট্টলি ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী মো: ইসমাইল প্রচারণার পোস্টার ফেস্টুন ছেঁড়া ও কর্মী মহসীন কে হত্যার প্রকাশ্য হুমকির অভিযোগ এনেছেন বিদ্রোহী প্রার্থী মোর্শেদ আকতার চৌধুরীর বিরুদ্ধে
  • ৩৩ নং ফিরিঙ্গিবাজার ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী মো: সালাউদ্দিনের বিরুদ্ধে ব্যানার ও পোস্টারে নিজেকে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হিসেবে প্রচারের অভিযোগ এনেছেন বিদ্রোহী প্রার্থী হাসান মুরাদ বিপ্লব।

এবিষয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মাদ হাসানুজ্জামান বলেন, অভিযোগের ব্যাপারে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সংশ্লিষ্ঠ থানার অফিসার ইনচার্জ কে অবহিত করা হয়েছে এবং তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।