নিউজটি শেয়ার করুন

চট্টগ্রামে ৪১মামলায় ১৩হাজার টাকা জরিমানা

সিপ্লাস প্রতিবেদক: করোনার মহামারি ঠেকানোর জন্য গণসচেতনতা বাড়াতে নিয়মিত অভিযান চালিয়ে ৪১ মামলায় ১৩ হাজার ৩০০ টাকা অর্থদণ্ড করেছেন জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

শনিবার( ১৭ এপ্রিল) চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসনের ১০ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নগরীর বিভিন্ন স্থানে দিনব্যাপী মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেছেন।

এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ সোহেল রানা নগরীর পাহাড়তলী হালিশহর ও আকবরশাহ এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার সময় ৭টি মামলায় ১৮০০ টাকা অর্থদণ্ড আদায় করেন। এ সময় অধিকাংশ সাধারণ মানুষ কে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে দেখেন এবং সচেতনতার লক্ষ্যে জেলা প্রশাসনের পক্ষে মাস্ক বিতরণ করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এহসান মুরাদ পতেঙ্গা ইপিজেড ও বন্দর এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা কালে সচেতনতার পাশাপাশি একটি বিপণী বিতান বন্ধ করে দেন এবং সাধারণ মানুষের মাঝে মাস্ক বিতরণ করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ ইনামুল হাছান পাহাড়তলী হালিশহর আকবরশাহ এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার সময় ১ টি মামলায় ১০০০ টাকা অর্থদণ্ড আদায় করেন। এছাড়াও সর্বাত্মক লকডাউন মেনে চলার ব্যাপারে জনসাধারণকে সচেতন করেন এবং জেলা প্রশাসনের পক্ষে মাস্ক বিতরণ করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাসুমা জান্নাত নগরীর পাঁচলাইশ বাকলিয়া ও চকবাজার এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার সময় ১০ টি মামলায় ১৮০০ টাকা অর্থদণ্ড আদায় করেন এবং লকডাউন ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার ব্যাপারে জনসাধারণকে সচেতন করেন। এছাড়াও সাধারণ মানুষের মাঝে মাস্ক বিতরণ করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ রাজিব হোসেন নগরীর পতেঙ্গা ইপিজেড ও বন্দর এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার সময় ০৬ টি মামলা দায়ের করে ২০০০ টাকা অর্থদণ্ড আদায় করেন। এছাড়াও সাধারণ মানুষের মাঝে মাস্ক বিতরণ করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রেজওয়ানা আফরিন শহরের কোতোয়ালি সদরঘাট ও ডবলমুরিং এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার সময় সাধারণ মানুষ কে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে দেখেন এবং জেলা প্রশাসন, চট্টগ্রামের পক্ষ হইতে মাস্ক বিতরণ করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট  ফাহমিদা আফরোজ নগরীর খুলশী বায়েজিদ ও চান্দগাও এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার সময় ২ টি মামলায় ১৫০০ টাকা অর্থদণ্ড আদায় করেন এবং সচেতনতার পাশাপাশি মাস্ক বিতরণ করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুরাইয়া ইয়াসমিন নগরীর কোতোয়ালি সদরঘাট ও ডবলমুরিং এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে ৪ টি মামলায় ৮০০ টাকা অর্থদণ্ড আদায় করেন। এ সময় অধিকাংশ সাধারণ মানুষ কে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে দেখা যায় এবং মাস্ক বিতরণ করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মিজানুর রহমান নগরীর পাঁচলাইশ বাকলিয়া ও চকবাজার এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার সময় ০৪ টি মামলায় ২১০০ টাকা অর্থদণ্ড আদায় করেন এবং মাস্ক বিতরণ করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল মামুন নগরীর খুলশী বায়েজিদ ও চান্দগাও এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে ৭ টি মামলায় ২৩০০ টাকা অর্থদণ্ড আদায় করেন। এছাড়াও লকডাউন সফল করার লক্ষ্যে সন্ধ্যার পর থেকে আরও দুইজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী ও হুছাইন মুহাম্মদ এর নেতৃত্বে চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করা হবে।