নিউজটি শেয়ার করুন

গণপরিবহন চালুর সিদ্ধান্ত গ্রহণের সাথে নগরীতে চলছে গণপরিবহন

সিপ্লাস প্রতিবেদক: শর্তসাপেক্ষে আগামী ৬ মে থেকে সরকার গণপরিবহন চালুর সিদ্ধান্ত নেওয়ার সাথে সাথে সোমবার চট্টগ্রাম নগরীতে গণপরিবহন চলাচল শুরু করেছে। এতে করে নগরীর বিভিন্ন মোড়ে গাড়ির তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়। যার ফলে ইফতারের আগে বাসায় ফেরা মানুষের চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে। এসময় অনেকেই রাস্তায় কিংবা গাড়িতে তোড়াহুড়া করে ইফতার করতে দেখা গেছে।

জিইসি থেকে বহদ্দারহাট বাসায় যাওয়া চাকুরীজীবি রফিক বলেন, এখন যেহেতু লকডাউন চলছে। সেহেতু রাস্তায় গাড়ির সংখ্যা অত্যন্ত কম। তাই প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬টা বাজে অফিস থেকে বের হয়ে বাসায় যেতে সময় লাগে ৭ মিনিট। কিন্তু এখন মুরাদপুরে জ্যামে আছি তারমধ্যে ২২ মিনিট হয়ে গেছে। বাসা তো দুরের কথা বহদ্দারহাট যাওয়ার আগেই ইফতারের সময় অতিবাহিত হয়ে যাবে।

ওয়াসার মোড়ে গাড়ির জন্য দাড়িয়ে থাকা একাধিক যাত্রী জানান, কঠোর লকডাউনের সময় কিছু দিন বাস বন্ধ ছিল। এরপর এ সব বাস বিভিন্ন গার্মেন্টস শ্রমিক পরিবহন নামে স্টিকার লাগিয়ে ডাবল ভাড়ায় যাত্রী উঠানামা করে। কি করব কাজ শেষে তো বাসায় ফিরতে হবে। তাই বাধ্য হয়ে যেতে হয়। শুধু তা নয় গাদাগাদি করে বসতে হয়। দাড়িয়ে পর্যন্ত যাত্রী নেন। তারপরও ডাবল ভাড়া নেন তারা। ট্রাফিকের সামনে থেকে পর্যন্ত তারা যাত্রী উঠানামা করে। কিন্তু নিরব থাকে ট্রাফিক! অনেক মোড়ে আবার ট্রাফিকও থাকে না। লকডাউন মানে ট্রাফিকের স্বস্থি।

প্রসঙ্গত, ঈদকে সামনে রেখে জনস্বার্থ বিবেচনায় আগামী ৬ মে থেকে শর্তসাপেক্ষে সরকার গণপরিবহন চালুর ব্যাপারে সক্রিয় চিন্তাভাবনা করছে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি জানান, জেলার গাড়িগুলো জেলার মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে। কোনোভাবেই জেলার সীমানা অতিক্রম করতে পারবে না। সিটি করপোরেশনের ক্ষেত্রে সিটি পরিবহন সিটির বাইরে যেতে পারবে না। ঢাকা থেকে ছেড়ে যাওয়া কোনও গাড়ি ঢাকা জেলার সীমারেখা অতিক্রম করতে পারবে না।

গণপরিবহনগুলোকে অবশ্যই অর্ধেক আসন খালি রেখে নতুন সমন্বয়কৃত ভাড়ায় চলতে হবে বলে জানান তিনি।

সোমবার (৩ মে) সকালে ময়মনসিংহ সড়ক জোন, বিআরটিএ ও বিআরটিসি কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে গণপরিবহন চালুর বিষয়টি জানান মন্ত্রী।