নিউজটি শেয়ার করুন

ক্ষতিপুরণ না দিয়ে কক্সবাজারে কাটা হচ্ছে ঝাউগাছ!

কক্সবাজারের মহেশখালী ধলঘাটায় গাছের মালিককে ক্ষতিপুরণ না দিয়ে ৮ হাজার ঝাউগাছ নিধনে নেমেছে এসপিসিএল কর্তৃপক্ষ। এতে সর্বস্ব হারিয়ে পথে বসার উপক্রম হয়েছে জমির ইজরাদার সামাজিক বনায়নের মালিক আনছারুল করিম। তিনি ক্ষতিপুরণ না দিয়ে ঝাউগাছ কর্তন ও অবকাঠামো অপসারণ না করতে কক্সবাজার জেলা প্রশাসক বরাবরে আবেদন করেছেন।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, সমাজিক বনায়নের মালিক পুর্ব সুতরিয়ার মৃত শের উল্লাহ সিকদারের পুত্র আনছারুল করিম উক্ত পরিত্যক্ত জমি উৎপাদনমুখী করার জন্য ইজরা নিয়ে বিপুল সংখ্যক ঝাউগাছ সৃজন করে। উক্ত ঝাউ বাগানের কারণে ধলঘাটার দক্ষিণাংশ সাগরের ঢেউ থেকে অনেকটা রক্ষা পেয়েছে। স্থানীয় লোকজন এই বাগানকে মডেল হিসাবে গন্য করে একে রক্ষাকবচ হিসাবে বিবেচনা করত।

সম্প্রতি সরকার থেকে ইজরা নেওয়া ওই জমিতে এসপিসিএল’র প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে।

বাগানের মালিক আনছারুল করিম জানান, প্রধানমন্ত্রীর এই মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নে আমরা সহযোগীতা করে যাচ্ছি। আগামীতেও তা করে যাব। আমরা চাই ধলঘাটায় উন্নয়নে এই বৃহৎ প্রকল্প বাস্তবায়নের বিকল্প নাই। আমরা জমি দিয়েছে সহযোগীতাও করে যাচ্ছি কিন্তু প্রকল্প কর্তৃপক্ষ কোন প্রকার ক্ষতিপুরণ না দিয়ে নির্বিচারে আমার সৃজিত গাছ ব্যাপকভাবে কর্তন করে যাচ্ছে। আমি দীর্ঘদিন এই বাগানের পরিচর্চা করে সর্বস্ব বিনিয়োগ করেছি। কিন্তু কর্তৃপক্ষ এখনো বিষয়টি আমলে না নিয়ে গাছ কর্তণ ও অবকাঠামো অপসারণ করে আমার চরম ক্ষতি করে যাচ্ছে।

জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন জানিয়েছেন, বিষয়টি ইতোমধ্যে অবগত হয়েছি। এ ব্যাপারে খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।