নিউজটি শেয়ার করুন

করোনায় ব্যাংক কর্মকর্তা মারা গেলে পরিবার পাবে ৫০ লাখ টাকা

সিপ্লাস ডেস্ক: করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ব্যাংকে কর্মরত প্রথম শ্রেণির কোনো কর্মকর্তা মারা গেলে তার পরিবার সাধারণ সুবিধার অতিরিক্ত ৫০ লাখ টাকা পাবে। অ্যাসিস্ট্যান্ট অফিসার সমমর্যাদার কর্মকর্তাদের পরিবারকে দিতে হবে সাড়ে ৩৭ লাখ টাকা। আর অফিস সহকারীকে দিতে হবে ২৫ লাখ টাকা।

গত বছরের ২৯ মার্চের পর মারা যাওয়া ব্যাংক কর্মীদের ক্ষেত্রে এ নির্দেশনা কার্যকর হবে।

সোমবার (১৯ এপ্রিল) এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করে সব ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীর কাছে পাঠিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে গত বছরের ১৫ এপ্রিল একই ধরনের একটি নির্দেশনা দিয়েছিল বাংলাদেশ ব্যাংক। সেখানে শুধু সাধারণ ছুটির মধ্যে স্বশরীরে ব্যাংকের দায়িত্ব পালনকালে কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারী করোনায় আক্রান্ত হলে ৫ থেকে ১০ লাখ টাকার বীমা সুবিধা এবং করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলে বীমা অংকের ৫ গুণ সুবিধা দিতে বলা হয়েছিল। গতবার শুধু সাধারণ ছুটিকালের জন্য এ নির্দেশনা দেওয়া হলেও এবার পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এটি কার্যকর থাকবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সার্কুলারে বলা হয়েছে, করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে ব্যাংক কর্মকর্তা-কর্মচারীর অনাকাঙ্ক্ষিত মৃত্যু হলে ক্ষতিপূরণ হিসেবে তার স্ত্রী, স্বামী বা সন্তান সুবিধা পাবেন। অবিবাহিতদের ক্ষেত্রে বাবা, মাকে এ অর্থ দিতে হবে। প্রথম শ্রেণির কর্মকর্তা, সিনিয়র অফিসার, প্রবেশনারি অফিসার, ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি অফিসার বা সমমান থেকে তদূর্ধ্ব কর্মকর্তাদের ক্ষেত্রে ৫০ লাখ টাকা দিতে হবে। অ্যাসিস্ট্যান্ট অফিসার বা সমমান পদমর্যাদার কর্মকর্তারা পাবেন সাড়ে ৩৭ লাখ টাকা। আর অফিস সহকারী (যে কোনো প্রক্রিয়ায় নিয়োজিত) ২৫ টাকা দিতে হবে।

এতে আরো বলা হয়েছে, এক্ষেত্রে ব্যাংকে তার অন্য কোনো দায়-দেনার সঙ্গে ক্ষতিপূরণের অর্থ সমন্বয় করা যাবে না। এ ক্ষতিপূরণ বর্তমানে প্রচলিত অন্য যে কোনো নীতিমালায় বর্ণিত কর্মকালীন মারা যাওয়া কর্মীদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য আর্থিক সহায়তার অতিরিক্ত হিসেবে প্রদেয় হবে। এ নির্দেশনা সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটির তারিখ থেকে অর্থাৎ গতবছরের ২৯ মার্চ থেকে কার্যকর হবে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত যা বলবৎ থাকবে।