cplusbd

নিউজটি শেয়ার করুন

ফটিকছড়িতে বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি- তিন ইউনিয়নে নৌকায় চলাচল

1st Image

আনোয়ার  হোসেন ফরিদ, ফটিকছড়ি (২০১৯-০৭-১৫ ০১:২৮:৩৯)

বৃহত্তর ফটিকছড়ি উপজেলায় পাহাড়ি ঢল ও  টানা বর্ষণের কারণে ১৮ টি ইউনিয়ন দুটি পৌনসভায় অধিকাংশ এলাকায় গত তিনদিন ধরে বন্যার পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ ধারণ করলেও রোববার সন্ধ্যা থেকে কিছুটা বন্যার পরিস্থিতি উন্নতি হয়েছে। তবে উপজেলার সুয়াবিল লেলাং, সমিতিরহাট, জাফতনগর ইউনিয়নের এখনো বন্যার পানি স্বাভাবিক রয়েছে, ওই এলাকার মানুষরা নৌকা নিয়ে চলাচল করতে দেখা গেছে।

হালদা নদী, ধুরুং ও সর্তা খালের নতুন-পুরানো ভাঙ্গন দিয়ে বন্যা প্রবেশ করছে।

রোববার রাতে মাইজভান্ডার এলাকায়ও পানি চলাচল করতে দেখা গেছে,নাজিরহাট- কাজীরহাট রামগড় সড়ক, গহিরা হেঁয়াকো সড়কে এখনো যানচলাচল বন্ধু রয়েছে। অন্যদিকে ফটিকছড়ি পৌরসভা, নাজিরহাট পৌরসভা, হারুয়ালছড়ি ইউনিয়ন এবং পাইন্দং ইউনিয়ন বন্যা পরিস্তিতি কিছুটা উন্নতি হয়েছে, তবে রাস্তা থেকে পানি সরে গেলেও এখনো খাল বিলে প্রচুর পরিমাণ পানি রয়েছে বলে এলাকাবাসীরা জানান।

উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের সাথে কথা বলে জানা গেছে উপজেলার যেসব ইউনিয়নে বন্যার পানি ঢুকেছে। সড়ক দিয়ে বন্যার পানি গড়িয়েছে সেসব সড়ক গুলো খন্দকের ভরে গেছে যান চলাচল এখনো স্বাভাবিক হয়নি।

ফটিকছডিতে টানা বর্ষণে ফটিকছড়িতে বন্যার কারণে ৭৬ মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়ে। বিভিন্ন ইউনিয়নে ১৮টি ঘর নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে, সাড়ে ১৩ হাজার পরিবার ঘর কিছুটা আংশিক ক্ষতি হয়েছে জানা গেছে।