cplusbd

নিউজটি শেয়ার করুন

২০০১ সালের মতো নীলনকশার নির্বাচন আর হবে না-ওবায়দুল কাদের

2018-07-12 03:14:45
1st Image

সিপ্লাস প্রতিবেদক: ২০০১ সালের মতো নীলনকশার নির্বাচন বাংলাদেশে আর হবে না বলে মন্তব্য করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। সব দলের অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের বিষয়েও সরকারের কিছুই করার নেই বলেও জানিয়েছেন তিনি।
বৃহস্পতিবার (১২ জুলাই) সকালে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে নির্মাণাধীন পটিয়া বাইপাস সড়কের কাজের অগ্রগতি পরিদর্শনের পর সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

কাদের বলেন, বিএনপি যতই রঙিন খোয়াব দেখুক, আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে, ২০০১ সালের মতো নীলনকশার নির্বাচন বাংলাদেশে আর হবে না।

প্রসঙ্গত, ২০০১ সালে অনুষ্ঠিত সংসদ নির্বাচনে ‍দুই-তৃতীয়াংশ আসনে জয়ী হয়ে সরকার গঠন করেছিল বিএনপি-জামায়াতের নেতৃত্বাধীন চারদলীয় জোট সরকার। পরাজয়ের পর সেই নির্বাচনে ‘স্থূল কারচুপির’ অভিযোগ এনেছিল আওয়ামী লীগ।

নির্বাচনে সব দলকে আনতে সরকারের কোনো উদ্যোগ আছে কিনা, জানতে চাইলে সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘উদ্যোগ নেবে নির্বাচন কমিশন। তফসিল ঘোষণার পর লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করাসহ সব নির্বাচনী কাজ করবে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচন পরিচালনা নিয়ে সরকারের করণীয় কিছু নেই। নির্বাচন কমিশন কোনো সহযোগিতা চাইলে সরকার শুধু সেই সহযোগিতা দেবে।’

নির্বাচনের আগে আওয়ামী লীগ-বিএনপির ভারত সফর প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচন নিয়ে আমরা ভারত সফর করিনি। আমার নেতৃত্বে যে টিম ভারতে গিয়েছিল, আমরা বিজেপি’র সেক্রেটারি জেনারেল রামমাধব সাহেবের আমন্ত্রণে গিয়েছিলাম। বিএনপি তো কোন আমন্ত্রণে যায়নি। তারা নিজেরা নিজেরা গেছে।

তিনি বলেন, ভারতে গিয়ে আমরা পার্টি টু পার্টি, পিপল টু পিপল কন্ট্যাক্টের কথা বলেছি। আমাদের সঙ্গে মোদি সাহেবেরও দেখা হয়েছে। সেখানেও আমরা নির্বাচন নিয়ে কোনো কথা বলিনি। আমরা আমাদের ইন্টারেস্ট নিয়ে কথা বলেছি। রোহিঙ্গাদের নিয়ে কথা বলেছি, তিস্তা নিয়ে কথা বলেছি।

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচটি ইমামের ভারত সফরের প্রসঙ্গ টেনে ওবায়দুল বলেন, এইচ টি ইমাম সাহেবের যে সফর সেটা, একেবারেই সেমি-গভর্নমেন্ট পর্যায়ের। সেটা থিংক ট্যাংক-টু-থিংক ট্যাংক লেভেলের। এটার সাথে আওয়ামী লীগ বা বিজেপির কোনো সম্পর্ক নেই।

২০১৯ সালের জানুয়ারিতে পটিয়া বাইপাস সড়কের কাজ শেষ হবে বলে জানান সেতুমন্ত্রী। শাহ আমানত সেতুর দুই পাশে নির্মাণাধীন একটি ছয় লেন ও আরেকটি চার লেনের সড়কের কাজের অগ্রগতির কথাও জানান তিনি। ওবায়দুল কাদের বলেন, এটা কুয়েত ফান্ডের প্রকল্প। চট্টগ্রামে ছয় লেনের সড়ক এই প্রথম।

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক চার লেন করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে জানিয়ে কাদের বলেন, ডিপিপি পরিকল্পনা কমিশনে জমা আছে। আমরা বিদেশি সংস্থা খুঁজছি। প্রধানমন্ত্রীর অনুরোধে জাইকা রাজি হয়েছে।

পরে মন্ত্রী পটিয়া থেকে নির্বাচিত আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য শামসুল হক চৌধুরীর বাড়িতে তার মায়ের জেয়াফত উপলক্ষে আয়োজিত মেজবানে অংশ নেন।