cplusbd

নিউজটি শেয়ার করুন

পাকিস্তানের প্রথম শিখ পুলিশকে জোর করে বাড়ি থেকে উৎখাত

1st Image

সিপ্লাস ডেস্ক (২০১৮-০৭-১২ ০১:২২:০৩)

পাকিস্তানের প্রথম শিখ পুলিশ কর্মী দাবি করেছেন, সরকারের সঙ্গে সম্পত্তি নিয়ে বিবাদের জেরে তাকে তার স্ত্রী ও সন্তানসহ বাড়ি থেকে উৎখাত করা হয়েছে। সম্প্রতি এক ভিডিওতে এমনটা জানিয়েছেন তিনি। খবর দ্য হিন্দুর।

দ্য ডেইলি পাকিস্তানের এক খবরে, গুলাব সিং শাহিন নামের ওই পুলিশ কর্মীর এক ভিডিওকে উদ্ধৃত করে জানানো হয়, গতকাল লাহোরের ডেরা চাহালে তাকে নিজ বাড়ি থেকে তার পরিবারসহ উৎখাত করেছে ‘ইভাক্যুয়ি ট্রাস্ট প্রপার্টি বোর্ড (ইটিপিবি)’। ইটিপিবি হচ্ছে ‘শিখ গুরুদ্বার প্রবন্ধক কমিটির’ অভিভাবক সংস্থা।

এমনকি তার পাগড়িও খুলে নেওয়া হয়েছে বলে জানান শাহিন। ফেসবুকে শেয়ার করা এক ভিডিওতে তিনি বলেন, আমার ঘরে জোর করে ঢোকা হয়েছে ও আমার চুল খুলে দেওয়া হয়েছে।

একটি ভিডিওতে দেখা যায়, শাহিন পুলিশের কাছে তাকে ‘১০ মিনিট’ সময় দেওয়ার অনুরোধ করছেন। উল্লেখ্য, তার পরিবার সেখানে ১৯৪৭ থেকে বাস করে আসছে। শাহিন পরবর্তীতে গণমাধ্যমকে জানান, ইটিপিবি’র সচিব তারিক ওয়াজির তাকে মারধোর করেছেন।

২০১১ সালে শাহিন ইটিপিবি’র সভাপতি সইদ আসিফ আখতার হাসমির বিরুদ্ধে তার পৈতৃক বাড়িতে অবস্থিত গুরুদ্বারের সম্পত্তি অবৈধভাবে বিক্রির অভিযোগ য়ের করেন। পরবর্তীতে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে পাক সুপ্রিম কোর্ট ওই সম্পত্তি বিক্রির জন্য ওই শাখা সংগঠনকে দায়ী করে।

পরে ইটিপিবি’র তরফে গুলাব সিংয়ের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে গুরুদ্বারের ‘লঙ্গর’ হলটি দখলের পাল্টা অভিযোগ করে। মঙ্গলবার সংগঠনের সদস্যরা পুলিস দিয়ে ওই হল ঘরটি খালি করে দেওয়ার চেষ্টা। তখন গুলাব সিং বাধা দিলে তাঁকে মারধর করা হয়।