নিউজটি শেয়ার করুন

মেজর(অব.) সিনহার ইউটিউব চ্যানেল নিয়ে যা বললেন শিপ্রা

সিপ্লাস ডেস্ক: টেকনাফে পুলিশের গুলিতে নিহত মেজর(অব.) সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান দুই বছর আগে সেনাবাহিনী থেকে স্বেচ্ছায় অবসরে গিয়ে একটি ভ্রমণ বিষয়ক ডকুমেন্টারি বানানোর জন্য গত প্রায় একমাস ধরে কক্সবাজারের হিমছড়ি এলাকায় ছিলেন। আরো তিন সঙ্গীকে নিয়ে তিনি উঠেছিলেন নীলিমা রিসোর্টে। সিনহার এক সহযোগী শিপ্রা দেবনাথ।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকের ‘জাস্ট গো’ নামের পেজে একটি ভিডিও আপলোড করেছেন শিপ্রা। সেখানে তিনি ‘জাস্ট গো’ নিয়ে সিনহার সাথে যে কর্ম পরিকল্পনা ছিল সে সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরেছেন।

ভিডিওতে শিপ্রা বলেন, ‘‘হ্যালো আমি শিপ্রা দেবনাথ। আমরা গত ৩ জুলাই আমি, সিনহা, সিফাত এবং রুসকি আমরা চারজন কক্সবাজারে আসি ‘জাস্ট গো’ শিরোনামে ইউটিউব চ্যানেলে কাজ করার জন্য। আমাদের সাথে ইতোমধ্যে বেশ কিছু অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটে যায় যেটা আপনারা অনেকেই জানেন। আমরা যে স্বপ্ন নিয়ে এখানে এসেছিলাম জাস্ট গো নামের একটা চ্যানেল করে সেটা নিয়ে কাজ করবো। বিভিন্ন প্রাকৃতিক দৃশ্য নিয়ে আমরা এখানে কাজ করছিলাম। আমরা যে প্রজেক্ট নিয়ে এখানে এসেছিলাম আমি ওই প্রজেক্টের ডিরেক্টর ছিলাম। আমি বিভিন্ন ধরনের স্ক্রিপ্ট তৈরি করছিলাম।

সিনহা আমাদের প্রোডিউসার ছিল কিন্তু আমরা তাকে শুধু একজন প্রোডিউসার বলতে চায় না সে ছিল আমাদের একজন সহযোগী বা সহকর্মী।

আমাদের বেশ কিছু প্লান ছিল যেগুলো বেশ কিছু ঘটনার কারণে সঠিকভাবে হচ্ছে না। যে স্বপ্ন নিয়ে আমরা এখানে এসেছিলাম যার জন্য আমরা অনেক কিছু হারিয়েছি, সেই স্বপ্নটা মনে হয় এখন কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা চলছে। অলরেডি জাস্ট গো নামে বেশ কিছু ভুয়া চ্যানেল তৈরি হয়ে গেছে। এই চ্যানেলটা আমাদের বাঁচানো জরুরি। যেই স্বপ্নের জন্য আমরা এতো কিছু হারিয়েছি আমরা চায় এই চ্যানেলটি বাঁচুক।

আমরা যে বড় বিল্ডিং তৈরি করেছি সেই বিল্ডিংয়ের সবচেয়ে শক্ত খুঁটিটি ভেঙ্গে গেছে। আমরা চাই এই খুঁটিটি যেন একেবারে ভেঙ্গে না পরে। আমরা আশা করি আপনারা আমাদের পাশে থাকবেন।

সিনহা অনেক বুদ্ধিমান ছিল। সে জানতো কোন কাজ কীভাবে করতে হয়। আমরা নদীর স্যুট করেছিলাম, পাহাড়ের স্যুট করেছিলাম ও বনের স্যুট করেছিলাম। তখন আমাদের টিমের সেফটির বিষয়টা ও দেখেছে কিন্তু সেই মানুষটা আজ আর নেই। যেদিন সে মারা যায় সেদিন সে পাহাড়ের টাইম লাইভ দিচ্ছিলো সেজন্য সেদিন আমার যাওয়ার প্রয়োজন হয়নি। সেই ক্যামেরার পিছনে থেকে ‘চলো আর একটা করি’ এমন কথা বলা লোকটা আর নেই।’’

প্রসঙ্গত, গত ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সিনহা।