নিউজটি শেয়ার করুন

মানববন্ধনে বক্তারা- “মন্ত্রী-এমপি’র সহযোগিতা নিলেও শরণাংকর রাঙ্গুনিয়ায় আসতে পারবে না”

রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধি: চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার পদুয়া ইউনিয়নের ফলাহারিয়া এলাকায় শরণাংকর ভিক্ষুর ইন্ধনে ইসলাম ধর্ম নিয়ে আপত্তিকর কটুক্তি, সাম্প্রদায়িক উষ্কানি, দেশবিরোধী নানা ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সমাবেশ থেকে এই ভিক্ষু ও তার দোসরদের দ্রুত গ্রেপ্তার পূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবী জানানো হয়।

শরণাংকর থের’র রাঙ্গুনিয়ায় আসার বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে মানববন্ধনে বক্তারা আরও বলেন, ‘শরণাংকর থেরকে কোনভাবেই রাঙ্গুনিয়ায় আসতে দেয়া হবে না। কোন মন্ত্রী-এমপির সাথে সমঝোতা করে উনাদের সাহায্য নিলেও রাঙ্গুনিয়ার ধর্মপ্রাণ মুসলিম সমাজ তাদের প্রতিহত করবে।’

বুধবার (১২ আগস্ট) বিকালে উপজেলার পদুয়া ইউনিয়নের ফলাহারিয়া বাজারে এই মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উপজেলার ফলাহারিয়া হযরত পাঠান আউলিয়া (রহঃ) ইসলামী সমাজ কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে ও স্থানীয় পাঠান আউলিয়া সুন্নীয়া মাদ্রাসার ব্যবস্থাপনায় এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন পাঠান আউলিয়া (রহঃ) সুন্নীয়া মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা মাওলানা মুহাম্মদ হাকিম উদ্দিন।

প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন হাটহাজারী আল হুদা মহিলা মাদ্রাসার মুফতি সাইফুল ইসলাম। প্রধান বক্তা ছিলেন রাঙ্গুনিয়া ওলামা পরিষদের সহ সভাপতি মাওলানা আবদুর রহিম।

মাওলানা কোরবান আলী চিশতি’র সঞ্চালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য দেন হযরত পাঠান আউলিয়া (রহঃ) ইসলামী সমাজ কল্যাণ সংস্থার সহ সভাপতি রফিকুল ইসলাম, মো. আনোয়ার, আবুল কালাম, আনিসুল হক, সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাইয়ুম, পিপলস ইসলামীক একাডেমির পরিচালক মাওলানা মুহাম্মদ ইদ্রিছ, খুরুশিয়া জামে মসজিদের খতিব মাওলানা রমজান আলী, জাহেদুল ইসলাম, মহির উদ্দিন রানা, মো. সোহেল, সাদ্দাম হোসেন প্রমুখ। শেষে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন ফলাহারিয়া কেন্দ্রিয় জামে মসজিদের খতিব মাওলানা আবু নাছের।

উল্লেখ্য ইসলাম ধর্ম নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্যের জেরে ইতিপূর্বেও রাঙ্গুনিয়ার বিভিন্ন স্থানে দফায় দফায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এমনকি ফলাহারিয়া গ্রামেও শরণাংকর থেরকে রাঙ্গুনিয়ায় অবাঞ্চিত ঘোষণাসহ গ্রেপ্তার দাবীতে নানা কর্মসূচী অব্যাহত রয়েছে। তাকে দ্রুত গ্রেপ্তার করা না হলে সারা দেশব্যাপী আরও বৃহত্তর আন্দোলনের কর্মসূচি দেওয়া হবে বলে আন্দোলনকারীরা জানিয়েছেন।