নিউজটি শেয়ার করুন

অসহায় মানুষের মাঝে রান্নাকরা খাবার বিতরণ করলো বিপ্লবী তারকেশ্বর দস্তিদার স্মৃতি পরিষদ

সিপ্লাস ডেস্ক: বিপ্লবী তারকেশ্বর দস্তিদার স্মৃতি পরিষদের উদ্যোগে আন্দরকিল্লা থেকে শুরু করে মোমিন রোড, জামালখান, নন্দনকানন, সিনেমা প্যালেস ও লালদীঘির পাড়ের  রিক্সা চালক, অসহায় মানুষের মাঝে ৩০০ প্যাকেট প্রোটিনযুক্ত খাবার বিতরণ করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন আন্দরকিল্লা ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জহর লাল হাজারী, মহিলা কাউন্সিলর পদপ্রার্থী নারীনেত্রী রুমকি সেন গুপ্তা, পরিষদের উপদেষ্টা অধ্যাপক স্বদেশ চক্রবর্তী, দানশীল ব্যক্তি নারায়ন মজুমদার, নন্দন চৌধুরী, প্রধান শিক্ষক কৃষ্ণ শেখর দত্ত, সাবেক প্রধান শিক্ষক বিজয় শংকর চৌধুরী, বিপ্লবী পরিবারের সদস্য প্রবীর দাশগুপ্ত(নন্তু), পরিষদের সভাপতি প্রধান শিক্ষক অঞ্জন কান্তি চৌধুরী, শিক্ষক উত্তম বিশ্বাস, শিক্ষক দীপেন চক্রবর্তী, শিক্ষক উত্তম চক্রবর্তী, শিক্ষক সোমনাথ বিশ্বাস, বিশিষ্ট সংগঠক অসীম দাশ, ইঞ্জিনিয়ার টিটন ভৌমিক, পরিষদের অর্থ সম্পাদক তপন ভট্টাচার্য্য, সাংগঠনিক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার সঞ্জয় চক্রবর্তী মানিক, সদস্য সজল দাশ, সুপেন দাশগুপ্ত, প্রেরণাদায়ী নারী হিসেবে স্বেচ্ছায় শ্রম দিয়েছেন টুম্পা ভট্টাচার্য্য।

পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন, অদৃশ্য শক্তি করোনা ভাইরাস এর কবল থেকে নিরাপদে থাকার জন্য আপনারা আজকে বাসায় থাকার কথা ছিল কিন্তু মানবিক মনুষ্যত্বের দায়বদ্ধতার কারণে আমাদের ডাকে আপনারা মৃত্যুকে ভুলে গিয়ে মানুষের কল্যাণে কাজ করার জন্য রাস্তায় নেমে এসেছেন তাই আপনাদেরকে পরিষদের পক্ষ থেকে গভীর শ্রদ্ধা জানাচ্ছি। আপনাদের মত সাহসি মানুষেরাই পারে দুর্যোগে, দুঃসময়ে মানব জাতিকে পৃথিবীর বুকে ধরে রাখতে।

করোনা যুদ্ধে এই পর্যন্ত পৃথিবীর যত মানুষ প্রাণ দিয়েছে, যারা মৃত্যুশয্যায় আছেন, মানবজাতিকে এই কষ্ট থেকে পরিত্রাণ দেওয়ার জন্য সকলে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করেন।

নেতৃবৃন্দ বলেন আমরা আজকে মাস্টারদা সূর্য সেনের পক্ষ থেকে এইখানে দাঁড়িয়েছি সূর্য সেন আমাদেরকে শিখিয়েছেন যখন মানবজাতি অত্যাচারিত হবে, ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হবে সেখানে প্রতিবাদ প্রতিরোধ সংগ্রাম ঘরে তুলতে হবে। আবার যেখানে মানুষ ঘুর্ণিঝর, জলোচ্ছ্বাস, বন্যায়, মহামারিতে মানুষ কষ্ট পাবে সেখানে মানব কল্যাণ মুখি কাজ করতে হবে। আজকে বিপ্লবী তারকেশ্বর দস্তিদার স্মৃতি পরিষদ দুটো কাজ একসাথে চালিয়ে যাচ্ছে। মানুষের সাথে যারা বেইমানি করে দ্রব্যমূল্য দাম বৃদ্ধি করে মানুষকে কষ্ট দিচ্ছে তাহাদেরকে ধিক্কার জানাচ্ছি, অচিরেই তাহাদেরকে আইনের আওতায় এনে বিচার করে শাস্তি প্রদান করার জন্য প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি।