নিউজটি শেয়ার করুন

নাইক্ষ্যংছড়ির ইউএনও কচি কোয়ারেন্টাইনে

নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি: নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিয়া আফরিন কচি নিরাপদে ও কোয়ারেন্টাইনে আছেন।

বর্তমানে তাঁর সহযোগী হিসাবে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় সকল প্রশাসনিক কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদুল ইসলাম। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বান্দরবান জেলাপ্রসাশক মোহাম্মদ দাউদুল ইসলাম।

বুধবার(২৫ মার্চ) বিকেলে এই তথ্য জানানো হয়।

কারণ হিসেবে জানা গেছে, কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে প্রথম যে নারীর প্রানঘাতি করোনা ভাইরাসে সনাক্ত হয়েছে ওই রোগীর যেসব চিকিৎসক ছিলেন, তাদের মধ্যে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইউএনও সাদিয়া আফরিন কচির স্বামী ডাঃ ইউনুচ একজন।

ককসবাজার সদর হাসপাতাল সুত্র বলছে, ওই ডাক্তার ইউনুচ বর্তমানে কোয়ারেন্টাইনে আছেন।

উল্লেখ্য, সদর হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত ওই রোগীর বাড়ি চকরিয়া উপজেলার খুটাখালীতে। তার নাম মুসলিমা খাতুন(৭০)। সে রামুর কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের ফাক্রির কাটা এলাকার মৃত ওয়াহেদ আলীর পুত্র মৌঃ নুরুল হকের সাশুড়ি। গত ১৭ মার্চ তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ১৮ মার্চ কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এতে চিকিৎসা চলাকালিন তার লক্ষনগুলো সন্দেহ হলে, মুসলিমার রক্তের সেম্বল পরীক্ষার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়। এতে গত ২৪ মার্চ মঙ্গলবার রাজধানীর রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর) থেকে পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়ার পর তার শরীরে করোনা ধরা পড়ার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে।

পরে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ওই করোনা রোগী ককসবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর যেসব ডাক্তার-নার্স তাকে চিকিৎসা দিয়েছেন, তাদের সবাইকে কোয়েরেন্টাইনে থাকতে বলেছেন।

এর আগে করোনার বিস্তার রোধে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা প্রশাসন ১০ নির্দেশনা দিয়ে পুরো উপজেলাকে লকডাউন করা হয়।