নিউজটি শেয়ার করুন

খাগড়াছড়িতে বিজিবি-গ্রামবাসী সংঘর্ষ, নিহত বেড়ে ৬

খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গায় একটি বাগানের গাছ কাটাকে কেন্দ্র করে বিজিবির সঙ্গে গ্রামবাসীর সংঘর্ষে একই পরিবারের ৪ সদস্যসহ ৬ জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে এক বিজিবি সদস্যও রয়েছেন।

মঙ্গলবার (৩ মার্চ) বেলা সাড়ে ১১টায় উপজেলার আলুটিলা বটতলী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

গোলাগুলির ঘটনায় ৪০ বিজিবির সিপাহী শাওন, আলুটিলা বটতলী গাজীনগরের আবদুল গফুরের ছেলে সাহাব মিয়া (মুছা), সাহাব মিয়ার ২ ছেলে মো. আহমেদ আলী (২৮) ও আলী আকবর ঘটনাস্থলে নিহত হন। এ ঘটনায় আহত দুইজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে মো. মফিজ মিয়া নামে একজন মারা যান।

এ ছাড়া গোলাগুলির সময় সাহাব মিয়ার স্ত্রী হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান বলে দাবি করেছেন নিহত সাহাব মিয়ার ছোট ভাই আবু বক্কর ছিদ্দিক।

মাটিরাঙ্গা সহকারী পুলিশ সুপার খোরশেদ আলম জানান, গোলাগুলির ঘটনায় ৫ জন ও এ ঘটনায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ১ জন মোট ৬ জন নিহত হয়েছেন। এদের মধ্যে একজন বিজিবির সদস্য রয়েছেন।

নিহত সাহাব উদ্দিন মিয়ার মেয়ে নিলুফা বেগম বলেন, বিদ্যুতের লাইন যাওয়ার কারণে তারা বেশ কিছু দিন আগে একটি গাছ কেটে রেখেছেন। মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে পাঁচ টুকরা গাছ গাজিনগর বাজার স মিলে নেওয়ার সময় বিজিবি বাধা দেয়। এসময় বিজিবির সঙ্গে নিহত সাহাব উদ্দিন ও তার দুই ছেলে তর্ক শুরু হয়। তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে বিজিবি সদস্যরা গুলি করলে ঘটনাস্থলে একই পরিবারে তিনজন মারা যান।

নিহত সাহাব উদ্দিন মিয়ার ছোট ভাই মো. ইব্রাহিম বলেন, দুই ছেলে আহম্মদ আলী ও আলী আকবরকে সঙ্গে নিয়ে ট্রলিতে করে কাঠ নিয়ে যাচ্ছিলেন মুসা। গাজীনগর চেকপোস্টে বিজিবি সদস্যরা তাদের থামালে সেখানে দুই পক্ষের কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে বিজিবি সদস্যরা গুলি করলে আমার ভাই সাহাব ও দুই ভাতিজা নিহত হয়।

নিহত সাহাব উদ্দিন মিয়ার আরেক ভাই আবুবকর বলেন, আহম্মদ আলী ও বিজিবি সদস্যের লাশ হাসপাতালে নিয়ে গেছে। সাহাব আর আলী আকবরের লাশ ঘটনাস্থলে পড়ে আছে।

এদিকে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে দুই জনকে আটক করেছে মাটিরাঙ্গা থানা পুলিশ। মাটিরাঙ্গা থানার ওসি শামছুদ্দিন ভুঁইয়া জানান, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদেরকে আটক করা হয়েছে।

বিজিবি সদস্য শাওন কীভাবে মারা গেছেন সে বিষয়টি নিশ্চিত করতে পারেননি ওসি।

মাটিরাঙ্গা উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. খায়রুল আলম বলেন, হাসপাতালে এখন পর্যন্ত দুইটি লাশ এসেছে। তাদের শরীরেও গুলির চিহ্ন রয়েছে।

মাটিরাঙ্গা পৌরসভার মেয়র মো. সামসুল হক জানান, গাছ কাটা নিয়ে বিজিবি সঙ্গে গ্রামবাসীর সংঘর্ষের এক পর্যায়ে বিজিবি সদস্যরা গুলি ছোড়ে।

সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (মাটিরাঙ্গা সার্কেল) খোরশেদ আলম বলেন, সংঘর্ষের কারণ এখন পর্যন্ত জানা যায়নি। তদন্তের পর সঠিক কারণ জানানো যাবে। আহত চারজনের মধ্যে দুই জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা করবে পুলিশ।

খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস জানান, এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য খাগড়াছড়ির অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।