নিউজটি শেয়ার করুন

বাড়বকুন্ডে দাওয়াতে খায়র ইজতেমা

মুসলিমদের মধ্যে সামাজিক অবক্ষয় ও ধর্মের নামে উগ্রবাদ চর্চার প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে কামরুল ইসলাম দুলু মুসলমান হিসেবে জীবন যাপন এবং ঈমান নিয়ে মৃত্যুর জন্য ‘দাওয়াতে খায়র ‘ একটি গণশিক্ষা কর্মসূচির মতো কাজ করছে।

অজ(২৮ ফেব্রুয়ারি) জুমাবার, সীতাকুণ্ড উপজেলার বাড়বকুণ্ড উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত ‘দাওয়াতে খায়র ‘ ইজতেমায় বিষয় ভিত্তিক আলোচনায় অংশ নেওয়া দেশের শীর্ষস্থানীয় মুফতি-মুহাদ্দিসগন একথা বলেন।

বর্তমানে যেভাবে আমাদের মুসলিমদের মধ্যে সামাজিক অবক্ষয়, ইসলামের মৌলিক আক্বিদা-আমলের জ্ঞানের দৈন্যদশা এবং সর্বোপরি ধর্মের নামে উগ্রবাদ চর্চার প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে এ থেকে উত্তরণে ‘দাওয়াতে খায়র’ একটি যুগোপযোগী গতিশীল কর্মসূচী হিসেবে ইতোমধ্যে গণ্য হচ্ছে। এ গণশিক্ষা কার্যক্রমে রয়েছে মুসলমান হিসেবে জীবন যাপন এবং ঈমান নিয়ে মৃত্যুর পাথেয়।

জুমার নামাজের খুতবায় দেশবরেণ্য গবেষক, আল্লামা মুহাম্মদ আবদুল মান্নান দিল্লিতে মুসলমানদের উপর নারকীয় হত্যাকাণ্ড সহ মসজিদ, মাজার এবং বাড়ি ঘরে হামলা ও অগ্নিসংযোগের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানান এবং দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

তিনি সর্বত্র আন্তঃ ধর্মীয় সম্প্রীতি বজায় রাখার উপর গুরুত্ব দিয়ে বলেন, ইসলামের মদিনা সনদ এবং বিদায় হজ্বের ভাষণ বিভিন্ন ধর্ম-বর্ণের মানুষের সহাবস্থানের যে পথ পরিষ্কার করেছে , তা থেকে সমগ্র বিশ্ববাসী শিক্ষা নিতে পারে। অমুসলিম ও তাদের উপাসনালয়ের নিরাপত্তা রক্ষায় ইসলামের যে উদার দৃষ্টিভঙ্গি তা ইসলামের মর্যাদাকে অপরাপর সব ধর্মের উপর আরো বাড়িয়ে দিয়েছে।প্রকৃত মুসলমানরা কখনো অন্য ধর্মের উপাসনালয়ে হামলা করেনা, অথচ সমগ্র বিশ্বব্যাপী আজ মুসলমানরা এবং মসজিদ-দরগাহ্গুলো একের পর এক হামলার শিকারে পরিণত হয়েছে।

তিনি ভারতসহ বিশ্বব্যাপী নির্যাতিত মুসলমানদের রক্ষা করতে ইসলামী বিশ্বের নেতৃবৃন্দের কার্যকর পদক্ষেপ দাবি করেছেন। সকাল ৮ টা থেকে কোরানে করিম তেলাওয়াত তরজমা-তাফসির, মাজমুয়ায়ে সালাওয়াতে রাসুল(দ) পাঠ, দরসে হাদিস পেশ করার পর, বড় পর্দায় অঙ্গভঙ্গি ও চিত্রের মাধ্যমে বিভিন্ন জরুরি মাসায়েল , মৃত ব্যক্তির গোসল- কাফন-দাফন ইত্যাদির শিক্ষা দেন কেন্দ্রীয় মুয়াল্লিম মৌলানা ইমরান হাসান আল কাদেরী ও মৌলানা আতিকুল্লাহ’র নেতৃত্বে অপরাপর ৭৩ জন প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত মুয়াল্লিমগণ।

মাদক, মহামারি, নারীর প্রতি সহিংসতা, সুদ-ঘুষ, সন্ত্রাস-দুর্নীতি,বিয়ে শাদীতে অশ্লীলতা বিশেষত আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআতের সঠিক আক্বিদা-আমলের বিভিন্ন বিষয় ভিত্তিক আলোচনায় অংশ নেন অধ্যক্ষ মুফতি সৈয়দ অসিয়র রহমান, উপাধ্যক্ষ ড মৌলানা লিয়াকত আলী, শাইখুল হাদিস হাফেজ আল্লামা সোলায়মান আনসারী,মুফতি মোহাম্মদ আবদুল ওয়াজেদ, উপাধ্যক্ষ মৌলানা আবুল কাসেম ফজলুল হক, উপাধ্যক্ষ মৌলানা জুলফিকার আলী চৌ, অধ্যক্ষ মৌলানা আবুল কালাম আমিরী, অধ্যাপক মৌলানা সৈয়দ জালালুদ্দিন আল আজহারী, মুহাদ্দিস মৌলানা কামাল উদ্দিন আজহারী, মৌলানা আবুল হাসান মুহাম্মদ উমাইর রেজভী, মৌলানা ইউনুস তৈয়্যবী, মৌলানা আবুল হাসনাত কাদেরী ,মৌলানা খোরশেদুল আলম ও মৌলানা আলী সিদ্দিকী প্রমূখ।

বাদ এশা আখেরী মুনাজাত করেন ওস্তাদুল ওলামা, শেখুল হাদিস, মুফতি ওবাইদুল হক নঈমী। এতে, শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ দিদারুল আলম এম পি।

অন্যান্যের মধ্যে অতিথি হিসেবে ছিলেন সাবেক মেয়র মনজুর আলম, সিতাকুন্ড উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ এস এম মামুন, বাড়বকুণ্ড ইউ পি চেয়ারম্যান আলহাজ সাদাকাত উল্লাহ মিয়াজি, চেয়ারম্যান আলহাজ মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন,আনজুমান ট্রাস্টের কর্মকর্তাদের মধ্যে আলহাজ মোহাম্মদ মহসিন, আলহাজ মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, আলহাজ মোহাম্মদ শামসুদ্দিন, আলহাজ্ব মোহাম্মদ সিরাজুল হক, আলহাজ্ব মোহাম্মদ গিয়াসউদ্দিন শাকের, অধ্যাপক কাজী শামসুর রহমান, গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ কর্মকর্তাদের মধ্যে আলহাজ্ব পেয়ার মোহাম্মদ কমিশনার, আলহাজ্ব মোহাম্মদ আনোয়ারুল হক, শাহজাদ ইবনে দিদার, মোছাহেব উদ্দিন বখতিয়ার, মাহবুব খাঁন,মাহবুব এলাহি সিকদার, মীর সেকান্দর মিয়া,সাদেক হোসেন পাপ্পু, কমর উদ্দিন সবুর, মাস্টার হাবিবউল্লাহ, মৌলানা এয়াসিন হায়দারী, জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, অধ্যক্ষ মৌলানা আবদুল আউয়াল ও মৌলানা আবদুল খালেক ও আলহাজ মোবারক হোসেন সওঃ প্রমুখ।