নিউজটি শেয়ার করুন

আমি হতাশ নই: চট্টগ্রাম ফিরে আ জ ম নাছির

চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাছির ফের মেয়র প্রার্থী হতে চেয়ে গত শনিবার ঢাকায় গণভবনে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডে সাক্ষাৎকার দিতে উপস্থিত ছিলেন।

কিন্তু তাকে বাদ দিয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নগর কমিটির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম সম্পাদক রেজাউল করিম চৌধুরীর নাম সেদিনই ঘোষণা করে।

এরপর এক দিন ঢাকায় কাটিয়ে সোমবার বিকালে চট্টগ্রামে ফিরে বিমানবন্দর থেকে সরাসরি নগরীর নজির আহমদ চৌধুরী সড়কের বাড়িতে যান তিনি।

ওই বাড়িতে আগে থেকে নাছিরের কয়েকশ সমর্থক জড়ো ছিলেন। নাছির মনোনয়ন না পাওয়ায় তাদের চোখেমুখে ছিল হতাশার ছাপ।

ওই বাড়িতে উপস্থিত সাংবাদিকরা নানা প্রশ্ন করলে মিনিট খানেক কথা বলেন নাছির।

নাছির বলেন, “শতভাগ সমর্থন দিয়েছি, উনাকে (দলীয় প্রার্থী রেজাউল) বিজয়ী করার জন্য আমি আন্তরিকভাবে চেষ্টা করব ইনশাল্লাহ।”

মনোনয়ন না পাওয়ায় কোনো হতাশ কি না- জানতে চাইলে তিনি বলেন, “আমার চেহারা দেখতেছেন না (হাসি)। আমার মধ্যে কোনো হতাশা নাই। কর্মীদের মধ্যে কিছুটা ইমোশন আছে। এটা আস্তে আস্তে কেটে যাবে।”

নাছিরের অনুসারী নেতাকর্মীরা এসময় স্লোগান দিচ্ছিল- ‘নেতা তোমার ভয় নাই, রাজপথ ছাড়ি নাই’, ‘চলছে লড়াই চলবে’, ‘আমার সবাই নাছির সেনা, ভয় করি না বুলেট-বোমা’।

নাছির বলেন, “আজকেই এসেছি ঢাকা থেকে। কর্মীদের সাথে বসে কথা বলব পর্যায়ক্রমে। এবং আমাদের মাননীয় নেত্রী মনোনীত প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী আসবেন। আমরা মহানগর আওয়ামী লীগের নেতারা সবাই বসব। সবাইকে নিয়ে ঠিক করব, কীভাবে নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় সমন্বয় করা যায়।”

নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে কিছু বলবেন কি না- জানতে চাইলে তিনি বলেন, “প্রধানমন্ত্রী মনোনীত প্রার্থীকে বিজয়ী করতে জীবনবাজি রেখে যেভাবে কাজ করতে হয় সেভাবে করতে হবে।”

এর আগে এক ফেইসবুক পোস্টে নাছির লেখেন- “দলীয় সভানেত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা যে সিদ্ধান্ত দিয়েছেন সবকিছু বিবেচনা করেই দিয়েছেন। এবং তার এই সিদ্ধান্তকে শিরোধার্য। এখন চট্টগ্রামের মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে আমার পক্ষ থেকে আমার যে সাংগঠনিক দায়িত্ব সে দায়িত্বটা একেবারে শতভাগ ও আন্তরিকতার সাথে পালন করে নৌকার প্রার্থীকে বিজয়ী করার জন্য সর্বশক্তি নিয়োগ করব।”

ঢাকা থেকে ফিরে কিছুক্ষণ বাসায় কাটিয়ে টাইগার পাস এলাকার নগর ভবন যান মেয়র নাছির।

ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে ফেরার সময় নাছিরের সঙ্গে ছিলেন নগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা সফর আলী ও সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ।