আজহারীকে নিয়ে সাঈদীপুত্রের আবেগঘন স্ট্যাটাস

সিপ্লাস ডেস্ক
  • Update Time : রবিবার, ৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২০, ০১:১৫ pm
  • ৭৮১৩ বার পড়া হয়েছে

হালের জনপ্রিয় ইসলামী বক্তা মিজানুর রহমান আজহারীকে নিয়ে সামাজিকমাধ্যম ফেসবুকে একটি আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধে আমৃত্যু কারাদণ্ডে দণ্ডিত জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর ছেলে মাসুদ সাঈদী।

স্ট্যাটাসটি হুবহু পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো-

‘হক্বের পথে থাকলে, হক্ব কথা বললে বাধা আসবে সে তো জানা কথা। তবে বাধাটা এত দ্রুত আসবে সেটি ভাবিনি। তবে এটা তো আপনার জন্য বড়ই সৌভাগ্যের বিষয়। আল্লাহতায়ালার মেহেরবানিতে অত্যন্ত দ্রুততম সময়ে মানুষের যে ভালোবাসা আপনি পেয়েছেন সত্যিই তা বিরল। মন বলে, আল্লাহতায়ালা আপনাকে কবুল করে নিয়েছেন।

আপনার চলে যাওয়ার সিদ্ধান্তে যদিও আপনাকে মিস করবে অসংখ্য অগণিত মানুষ তথাপি সকলের জন্যই সান্ত্বনার বিষয়ও আছে। হয়তো আপনি সাময়িক চোখের আড়ালে থাকবেন, কিন্তু আপনার কণ্ঠ এখন ছড়িয়ে গেছে সর্বত্র। আপনি পৌঁছে গেছেন বাংলার ঘরে ঘরে।

হক্ব কথা বলার কারণে ওরা আল্লামা সাঈদীর মতো বিশ্বনন্দিত কোরআনের দায়িকেও আজ ১০ বছর ধরে কারাগারে বন্দি করে রেখেছে। ওরা আল্লামা সাঈদীকে জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন করতে চেয়েছিল।

কিন্তু আলহামদুলিল্লাহ ওরা তা পারেনি। বরং আল্লামা সাঈদীর প্রতি বিশ্বব্যাপী মানুষের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা শতকোটি গুণ বেড়ে গেছে। এটি আর কিছু নয়, কোরআনের পাখির প্রতি মানুষের এই ভালোবাসা শুধুই আল্লাহর জন্য, কোরআনের জন্য।

আপনারা যারাই আজ কোরআনের হক্ব কথাগুলো মানুষকে বলছেন, মানুষকে দ্বীনের পথে দাওয়াত দিচ্ছেন, তাদের মাঝে মানুষ আল্লামা সাঈদী হাফেজাহুল্লাহকে খুঁজে পান।

আপনাদের প্রতিটি কথা ও কাজ তারা আল্লামা সাঈদীর সঙ্গে মিলিয়ে নেন। আল্লামা সাঈদীর উত্তরসূরি হিসেবে দেশের মানুষ আপনাদেরই বেছে নিয়েছেন।

মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ (সা) থেকে শুরু করে যুগে যুগে সত্যপন্থীদের দমাতে ইসলামী আন্দোলনের বিরোধীরা তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন নামের ট্যাগ লাগিয়েছে।

সেই মহাসত্যের ঝাণ্ডাবাহী হিসেবে আপনাদের বিরুদ্ধেও বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন নামের ট্যাগ লাগানো হচ্ছে।তাতে কী!

জনতার হৃদয়ের মনিকোঠায় আপনারা ছিলেন, আপনারা আছেন, আপনারা থাকবেন ইনশাআল্লাহ।

তাই..

চলে যাওয়া মানে হেরে যাওয়া নয়

চলে যাওয়া মানে চিরস্থায়ী বিচ্ছেদ নয়

চলে যাওয়া মানে কোনো অধ্যায়ের পরিসমাপ্তিও নয়

চলে যাওয়া মানে সকল বন্ধন ছিন্ন করাও নয়এ যাওয়া বড়ই সাময়িক…’

প্রসঙ্গত চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত সব তাফসির কর্মসূচি স্থগিত করার ঘোষণা দিয়েছেন মিজানুর রহমান আজহারী। এ সময়ে গবেষণার কাজে তিনি মালয়েশিয়ায় চলে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন।

নিজের কর্মসূচি স্থগিত করার পেছনে পারিপার্শ্বিক কারণের কথাও উল্লেখ করেছেন তিনি।

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020 cplusbd.net