নিউজটি শেয়ার করুন

দুই সন্তানের জননীকে ধর্ষনের অভিযোগে চট্টগ্রাম দক্ষিন জেলা ছাত্রলীগ নেতা আকিব গ্রেফতার

দুই সন্তানের জননীকে ধর্ষনের অভিযোগে চট্টগ্রাম দক্ষিন জেলা ছাত্রলীগ নেতা আকিব গ্রেফতার

দুই কন্যার জননীকে ধর্ষন ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে চট্টগ্রাম দক্ষিন জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আকিবুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে বাকলিয়া থানার পুলিশ৷

গ্রেফতার আকিব আনোয়ারার হাইলধর ইউনিয়নের নুরুল আবছারের ছেলে৷

ধর্ষনের শিকার দুই সন্তানের জননীর অভিযোগে বাকলিয়া থানার পুলিশ  সোমবার দুপুরে আকিবকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করে৷

নগর পুলিশের সহকারী কমিশনার (প্রসিকিউশন) শাহাবুদ্দিন আহমদ বলেন, ‘নারী ও শিশু নির্যাতন আইন ও দণ্ডবিধি আইনে করা একটি মামলায় আকিবুল ইসলামনামের একজনকে বাকলিয়া থানা পুলিশ আদালতে হাজির করলে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘আসামী আকিবুল ইসলাম সরকারি কর্মচারী পরিচয় দিয়ে বিয়ের প্রলোভনে ভুক্তভোগী ওই নারীকে ধর্ষণ করেন। এছাড়াও ওই নারীর কাছ থেকে বিভিন্ন সময় প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ আত্মসাত করার কথা এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে।

মামলা এজাহার সূত্রে জানা গেছে, স্বামীর সাথে ছাড়াছাড়ি হয়ে যাওয়া ৩৫ বছর বয়সী ওই নারীর দুটি সন্তান আছে৷ মূলত সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে আকিবুল ইসলাম পিজন নামের আইডির সূত্রে ঐ নারীর সাথে আকিবুল ইসলামের পরিচয় ঘটে। আকিব নিজেকে পুলিশের এএসপি পরিচয় দেন।

পরিচয় সূত্রে নারীর সাথে আকিবুল ইসলামের সঙ্গে দেখা সাক্ষাতের একপর্যায়ে ঐ নারীর অন্তরঙ্গ ছবি তুলে আকিব। পরে ব্ল্যাকমেইল করে ভুয়া নাম-ঠিকানা ব্যবহার করে ওই নারীকে বিয়ে করে আবাসিক হোটেলে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে সম্পর্ক স্থাপন করে। খুবই চতুর প্রকৃতির যুবক আকিব ঐ নারীর কাছ থেকে মোটরসাইকেল, আইফোন কেনা থেকে বিভিন্ন অজুহাতে বিপুল অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়। ইতিমধ্যে স্বামী রুপি প্রতারক আকিবের নানান অপকর্মের তথ্য ঐ নারী জেনে গেলে গতবছর ডিসেম্বরের ২৫ তারিখ থেকে আকিব ওই নারীর সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়ে উল্টো নানান ভয় ভীতি প্রদর্শন করে৷

নিরুপায় হয়ে গতকাল ৫ জানুয়ারি নারী বাকলিয়া থানায় ধর্ষণ ও প্রতারণার মামলা দায়ের করেন।

আকিবুল ইসলামেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে বাকলিয়া থানার ওসি নেজাম উদ্দিন সিপ্লাসকে জানিয়েছেন৷

এই বিষয়ে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি বোরহান উদ্দিন সিপ্লাসকে বলেন, আকিবুল ইসলামের গ্রেফতার ও তার বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগের বিষয়টি ইতিমধ্যে ছাত্রলীগের কেন্দীয় নেতাদের জানানো। সেই সাথে আকিবুল ইসলামকে দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের কমিটি থেকে তাকে বাদ দেওয়ার সুপারিশ করা হয়েছিল।

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সূত্রে জানা গেছে আকিবুল ইসলামকে সংগঠন থেকে বহিষ্কারের স্বিদ্ধান্ত দ্রুত জানিয়ে দেয়া হবে৷