হাটহাজারীতে গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

হাটহাজারী প্রতিনিধি
  • Update Time : রবিবার, ৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ০৪:৫২ pm
  • ৭৫২৬ বার পড়া হয়েছে

হাটহাজারী থানার ১১ মাইল মিনহাজ ম্যানশন থেকে রবিবার সন্ধ্যায় রেশমী আক্তার (২৫) নামের এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রবিবার ৮ সেপ্টেম্বর বিকালে হাটহাজারীর ফতেপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের ১১মাইল ফরেস্ট গেইটের বিপরীতে পুরাতন সিনেমা হল সড়ক সংলগ্ন মিনহাজ ম্যানশনে এ ঘটনাটি ঘটে।

মো. ইউসুফের ছেলে মোঃ নিয়ামত উল্লাহ জীবনের (৩৩) স্ত্রী রেশমী।

চট্টগ্রাম আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতাল এলাকার বাসিন্দা আব্দুন নূরের মেয়ে রেশমী আক্তার (২৫)।

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, রেশমি আক্তারের সাথে উক্ত ম্যানশনের মালিক ইউসুফের ছেলে নিয়ামত উল্লাহ জীবনের সাথে কোর্টের মাধ্যমে ৩ বছর আগে বিয়ে হয়েছে। রেশমী তার বাসায় আসা-যাওয়া করত। আজ রবিবার রেশমী স্বামী নিয়ামত উল্লাহ জীবনের সাথে দেখা করতে এসেছিল। এদিকে বিকাল সাড়ে ৫ টার দিকে এলাকাবাসি থানায় খবর দিলে দ্রুত ঘটনাস্থলে হাটহাজারী মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বেলাল উদ্দিন জাহাঙ্গীর ও তার সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে বাসার একটি কক্ষের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় রেশমীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। বাসার দরজা জানালা ও মেইগেইট খোলা ছিল এবং বাসায় তখন কেউ ছিল না।

জীবনের এক বন্ধু সানিম সিপ্লাসকে বলেন, মেয়েটির সাথে তার দীর্ঘদিনের সম্পর্ক ছিল। আগেও কয়েকবার তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়েছিল আমরা মীমাংসা করে দিয়েছিলাম। মেয়েটির ৭ বছরের একটি সন্তানও রয়েছে। আজ বিকাল দুইটার দিকেও ১১ মাইলে জীবনের সাথে আমার দেখা ও কুশল বিনিময় হয়েছে।

রেশমীর মা জেসমিন সুলতানা সিপ্লাসকে বলেন, ৩বছর আগে কোর্টের মাধ্যমে তাদের বিয়ে হয়েছে। জীবন আমার ও আমার মেয়ের সব টাকা-পয়সা শেষ করে ফেলেছে। আমার মেয়েকে আজকে কালকে পারিবারিকভাবে অনুষ্ঠান করে তুলে নেবে বলে তিন বছরও ঘরে তুলেনি। আগেও রেশমির একবার বিয়ে হয়েছিল সে ঘরের তামান্না সুলতানা জেসি নামে ৭ বছরের একটি মেয়ে রয়েছে।

হাটহাজারী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বেলাল উদ্দিন জাহাঙ্গীর সিপ্লাসকে বলেন, খবর শুনে আমি ঘটনাস্থলে এসে লাশের সুরতহাল করে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ামত উল্লাহ জীবনের পিতা মোঃ ইউসুফকে আটক করা হয়েছে। জীবন পলাতক রয়েছে। এই রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত রেশমির পরিবার থানায় মামলা দায়ের এর প্রস্তুতি চলছে বলে জানা যায়।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© All rights reserved © 2019 cplusbd.net
Shares