নিউজটি শেয়ার করুন

সীতাকুণ্ডে এ্যালামনাই ৯৪ চট্টগ্রামের উদ্যোগে প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মিলনমেলায় পুরানো স্মৃতিকে স্মরণ

কামরুল ইসলাম দুলু: বন্ধুত্বে আলো, বন্ধুত্বে সয়; বন্ধুত্বে শক্তি, বন্ধুত্বে জয়। বন্ধুদের এই বন্ধনকে অটুট রাখতে এ্যালামনাই ৯৪ চট্টগ্রাম সীতাকুণ্ড উপজেলার উদ্যেগে বিভিন্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১৯৯৪ ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা এক মিলনমেলার আয়োজন করেন। পুরানো সেই দিনের কথা ভুলতে না দিয়ে আবারো তারা মেতে উঠেন নতুন প্রাণসঞ্চারে।

আনন্দ, হাসি, গান, কবিতা আর আড্ডায় এদিন শিক্ষার্থীরা শুধু তাদের পুরানো স্মৃতিকে স্মরণ করেননি, ভবিষ্যতেও একসাথে চলার প্রত্যয় ঘোষণা করেন। আর তাদের সঙ্গে মিলেমিশে একাকার হয়ে পরিবার পরিজনরাও যুক্ত হন প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের আনন্দ-উল্লাসে।

শুক্রবার সকাল থেকে দিনব্যাপী উপজেলা বাঁশবাড়িয়া বীচে সেই পুরনো দিনেরই স্মৃতিচারণে মেতে উঠেন সবাই। অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন এ্যালামনাই ৯৪ চট্টগ্রাম সীতাকুণ্ড পিকনিক ও মিলন মেলা কমিঠির আহবায়ক ইন্জিয়ার কামরুদ্দৌজা ও সদস্য সচিব মোঃ ইসমাইল, এ্যালামনাই ৯৪ চট্টগ্রাম এর এডমিন উদয় চৌধুর, ফিরোজ আহাম্মেদ, সাইফুদ্দিন পারভেজ,সাইফুল ইসলাম,সাইফুল ইসলাম আজাদ,মোঃ আলাউদ্দীন, জাহেদুল হাসান,রোটারিয়ান শাহিন আহাম্মদ চৌধুরী, শহীদুল ইসলাম, ইন্জিনিয়ার আরিফ, ভূইয়াসহ কুমিল্লা,ফেনীসহ চটগ্রামের বন্ধুরা।

এ্যালামনাই ৯৪ চট্টগ্রাম সীতাকুণ্ডের ৯৪ ব্যাচের পুনর্মিলনী উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব মোঃ ইসমাইল বলেন, ২৭ বছর পর স্কুলের ১৯৯৪ ব্যাচের বন্ধুরা বন্ধুত্বের টানে, শৈশবের মধুর স্মৃতিচারণায় এক ব্যতিক্রমধর্মী মিলনমেলার আয়োজন করেছে। প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা বলেন, আমরা শৈশব-কৈশোরের খোঁজে এখানে ছুটে এসেছি, স্বপ্নের দরবারে, স্মৃতির আঙিনায়।

জাঁকালো এ আয়োজনে ছিল চাঁটগাইয়া মেজবান, আলোচন ও পরিচিতি সভা, কুশল বিনিময়, র্যাফেল ড্র, পুরস্কার বিতরণ এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। দীর্ঘদিনের পুরনো বন্ধু, সতীর্থ, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের পেয়ে প্রাণ জুড়িয়েই শেষ হয় পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান।

পূণর্মিলনী অনুষ্ঠানে সীতাকুণ্ড উপজেলা ২৩ স্কুলের প্রায় তিনশত জন প্রাক্তন শিক্ষার্থী উপস্থিত হয়।