নিউজটি শেয়ার করুন

শোক দিবসের কর্মসূচি নিয়ে ষড়যন্ত্রকারীরা কখনো বঙ্গবন্ধুর অনুসারী হতে পারে না

ফটিকছড়ি আওয়ামী লীগ একাংশের সংবাদ সম্মেলন

ফটিকছড়ি প্রতিনিধি: শোক দিবসের কর্মসূচি নিয়ে ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে ফটিকছড়িতে সংবাদ সম্মেলন করেছে উপজেলা আওয়ামী লীগের একাংশ।

শুক্রবার (২৭ আগস্ট) বিকালে উপজেলার নাজিরহাটের একটি কমিউনিটি সেন্টারে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহ আলম সিকদার।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, আমরা ফটিকছড়ি কলেজ মিলনায়তনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদৎ বার্ষিকীর আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে ২৩ আগস্ট ইউএনও মহোদয় থেকে লিখিত অনুমতিও নিয়েছি। কিন্তু বৃহস্পতিবার গভীর রাতে হঠাৎ করে ঐ এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করে উপজেলা প্রশাসন। মূলত আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী একটি মহল ছাত্রলীগকে ব্যবহার করে বঙ্গবন্ধু স্মরনে এ অনুষ্ঠানে কৌশলে বাঁধা প্রদানে ভুমিকা রেখেছে।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুবার্ষিকির অনুষ্ঠানে বাঁধা প্রদানকারীরা কখনো আওয়ামী লীগ হতে পারে না, তারা মূলত বিএনপি-জামায়াতের প্রেতাত্মা।

এ সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক তৌহিদুল আলম বাবু বলেন, আমরা অনুমতি নেওয়া সত্ত্বেও রাতের আঁধারে বঙ্গবন্ধুর স্মরণ সভা স্থলে ১৪৪ ধারা জারি করে মূলত ষড়যন্ত্রকারীদের ফাঁদে পা দিয়েছে প্রশাসন। যা ফটিকছড়ির ইতিহাসে নজিরবিহীন। আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য ও উপজেলা চেয়ারম্যান হোসাইন মুহাম্মদ আবু তৈয়ব বলেন, শোক দিবসের কর্মসূচীতে বাঁধা প্রদানকারীরা কখনো বঙ্গবন্ধুর প্রকৃত অনুসারী হতে পারে না।

তিনি আরো বলেন নাজিম-ইসমাইল গং ফটিকছড়ি আওয়ামী লীগকে নিজেদের স্বার্থে ব্যবহার করে সংগঠনকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গেছে। এ অবস্থা থেকে সংগঠনকে রক্ষা করতে ফটিকছড়ির ত্যাগী নেতাকর্মীরা জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সুদৃষ্টি কামনা করছে।

এ সময় সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কাইয়ুম, দিদারুর বশর চৌধুরী দুদু, আমান উল্লাহ চৌধুরী লিটন, মুহাম্মদ শাহনেওয়াজ, এস.এম শামসুদ্দীন, খায়রুল বশর চৌধুরী, ইউপি চেয়ারম্যান সরোয়ার উদ্দীন শাহীন, হারুনুর রশিদ, শফিউল আজম, জয়নাল আবেদীন, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী সৈয়দা রিফাত আক্তার নিশু, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেবুন নাহার মুক্তা, সাজেদা সাফা, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকী, আব্বাস উদ্দীন বাদল, সাজিদ হায়দার রেজা, মৎস্যজীবী লীগ নেতা হারুনুর রশিদ, হাসান সরোযার আজম, এনামুল হক বাবুল, বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল হোসেন, মিনহাজুল ইসলাম জসিম, জুলফিকার আলী ভুট্টু, যুবলীগ নেতা মীর মোরশেদুল আলম সহ আওয়ামী লীগ, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments