নিউজটি শেয়ার করুন

মুক্তিযুদ্ধে জিয়ার অবদানের ইতিহাস ‘বিকৃত’ করছে সরকার: শাহাদাত

সিপ্লাস প্রতিবেদক: পাকিস্তানী সেনা কর্মকর্তা কর্নেল জানজুয়াকে হত্যা করে সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান স্বাধীনতা যুদ্ধের ‘সূচনা’ করেছিন বলে দাবি করেছেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র আহবায়ক ডা. শাহাদাত হোসেন।

বুধবার(১ সেপ্টেম্বর) বিএনপির ৪৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে চট্টগ্রামে এক সভায় এ দাবি করেন তিনি।

তিনি বলেন, “১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ কালো রাত্রিতে তৎকালীন মেজর জিয়াউর রহমান পাকিস্তানী সেনা কর্মকর্তা কর্নেল জানজুয়াকে হত্যা করে ‘উই রিভোল্ট’ বলে মুক্তিযুদ্ধের সূচনা করেছিলেন।

“তিনি কালুরঘাট বেতর কেন্দ্র থেকে স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছেন। রণাঙ্গনে যুদ্ধ করে বাংলাদেশকে শত্রু মুক্ত করেছেন। তার ঘোষণায় বাংলার মানুষ স্বাধীনতা যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন। এটাই ইতিহাস… এর বাইরে যদি কোন ইতিহাস থাকে তাহল দালিলিক প্রমাণ দেন।”

ডা. শাহাদাত বলেন, “স্বাধীনতা পরবর্তী সরকার জিয়াউর রহমানকে বীর উত্তম খেতাব দিয়েছিলেন। কিন্তু বর্তমান সরকার নতুন প্রজন্মের কাছে সে ইতিহাসকে বিকৃত করে উপস্থাপন করছে।“

বর্তমান সরকারের এমপি ও মন্ত্রীরা ‘দ্বিগবিদিক জ্ঞানশুন্য’ হয়ে পড়েছেন মন্তব্য করে তিনি আরও বলেন, “তারা এখন বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ‘বীর উত্তম’ খেতাব কেড়ে নেয়ার ধৃষ্টতা এবং নতুন করে তার লাশ, মাজার ও মুক্তিযুদ্ধে তার অবদান নিয়ে আপত্তিকর ও মিথ্যাচার শুরু করেছেন।

“জিয়াউর রহমানকে নিয়ে আওয়ামী লীগ নেতাদের রুচিহীন বক্তব্য দেয়ার প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে।“

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ষোলশহর বিপ্লব উদ্যানে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান দলটির নেতাকর্মীরা। এর পর শোভাযাত্রা ও সমাবেশ করেন তারা।

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য মো. কামরুল ইসলামের পরিচালনায় এসব কর্মসূচীতে উপস্থিত ছিলেন মহানগর বিএনপির সি. যুগ্ম আহবায়ক আলহাজ্ব এম এ আজিজ, যুগ্ম আহবায়ক মো. মিয়া ভোলা, এস. কে খোদা তোতন, কাজী বেলাল উদ্দীন, ইসকান্দর মির্জা, আবদুল মান্নান, সদস্য মাহবুবুল আলম, এস এম আবুল ফয়েজ, আর.ইউ চৌধুরী শাহীন, জাহাঙ্গীর আলম দুলাল, আবুল হাশেম, মঞ্জুরুল আলম চৌধুরী মঞ্জু, থানা বিএনপির সভাপতি মনজুর রহমান চৌধুরী, মামুনুল ইসলাম হুমায়ুন, আবদুল্লাহ আল হারুন, এম আই চৌধুরী মামুন, নগর মহিলা দলের সভানেত্রী মনোয়ারা বেগম মনি, থানার সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব জাকির হোসেন, আবদুল কাদের জসিম, নগর বিএনপির নেতা সালাউদ্দীন কায়সার লাভু, মো. ইদ্রিস আলী, আবু মুছা, আরিফ মেহেদী, ইউসুফ সিকদার, জাকির হোসেন, মো. মহসিন, ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি আকতার খান, এস এম মফিজ উল্লাহ, আলাউদ্দিন আলী নুর, জাহিদ মাষ্টার, জমির আহমেদ, কাজী শামসুল আলম, মঞ্জুর আলম মন্জু, মো. আসলাম, হুমায়ুন কবির সোহেল, রফিক চৌধুরী, মো. বেলাল, ওয়ার্ড সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান চৌধুরী, এম. এ হালিম বাবলু, সিরাজুল ইসলাম মুন্সী, হাসান ওসমান, মনজুর কাদের, হাজী মো. জাহেদ, মো. হাসান, মহানগর ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক সালাউদ্দীন সাহেদ, সামিয়াত আমিন জিসান, সালাউদ্দীন কাদের আসাদ প্রমূখ।

 

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments