নিউজটি শেয়ার করুন

দেশে মাথাপিছু বিদেশি ঋণ প্রায় ২৫ হাজার টাকা

ছবি: সংগৃহীত

সিপ্লাস ডেস্ক: বাংলাদেশের নাগরিকদের মাথাপিছু বিদেশি ঋণের পরিমাণ ২৪ হাজার ৮৯০ হাজার টাকা। আজ বুধবার জাতীয় সংসদে এ তথ্য জানান অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। সংসদ অধিবেশনে চট্টগ্রাম-৪ আসনের সংসদ সদস্য দিদারুল আলমের এক প্রশ্নের উত্তরে এ তথ্য দেন তিনি। মন্ত্রী বলেন, দেশে উন্নয়ন কর্মকাণ্ড যত বেড়েছে, বিদেশি ঋণও তত বেড়েছে।

সরকার প্রতিবছর বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য উন্নয়ন সহযোগীদের সঙ্গে অর্থায়নের জন্য ঋণ চুক্তি করে উল্লেখ করে অর্থমন্ত্রী বলেন, নির্ধারিত সময়ে কিস্তিতে কিস্তিতে সুদসহ সে অর্থ ফেরত দিতে হয়।  দেশে উন্নয়ন কর্মকাণ্ড  ‍বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে বিদেশি ঋণের পরিমানও বেড়েছে। তাতে এক দশকে মাথাপিছু ঋণ বেড়েছে প্রায় ছয়গুণ।

অর্থমন্ত্রী জানান, বর্তমানে বৈদেশিক ঋণের স্থিতি ৪ হাজার ৯৪৫ কোটি ৮০ লাখ মার্কিন ডলার।  পরিসংখ্যান ব্যুরোর তথ্য অনুযায়ী, দেশের মোট জনসংখ্যা ১৬ কোটি ৯৩ লাখ।  এই হিসেবে মাথাপিছু বৈদেশিক ঋণের পরিমাণ হয় ২৯২ দশমিক ১১ মার্কিন ডলার।  প্রতি ডলার ৮৫.২১ টাকা হিসেবে বাংলাদেশি টাকায় এর পরিমাণ দাঁড়ায় ২৪ হাজার ৮৯০ টাকা ৬৯ পয়সা।  ২০১৯ সালেও এর পরিমাণ ছিল ১৭ হাজার টাকার মতো।

মন্ত্রী আরও বলেন, চলতি অর্থ বছরের জন্য ৬ লাখ কোটি টাকার যে বাজেট সরকার করেছে, তার মধ্যে ১ লাখ ১ হাজার ২২৮ কোটি টাকা বিদেশ থেকে ঋণ হিসেবে নেয়ার লক্ষ্য ধরা হয়েছে। তাতে অর্থবছর শেষে মাথাপিছু ঋণের স্থিতি আরো বাড়বে।

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments