নিউজটি শেয়ার করুন

দেশে ফিরতে কাবুল থেকে কাতারে ১২ বাংলাদেশি

সিপ্লাস ডেস্ক: আফগানিস্তানের কাবুল বিমানবন্দরে ভয়াবহ আত্মঘাতী হামলার পর সেখানে আটকে থাকা ১২ বাংলাদেশি নাগরিক দেশে ফিরছেন। তাদের সঙ্গে ১৬০ জন আফগান শিক্ষার্থীও আসছেন বাংলাদেশে। তারা ইতিমধ্যে কাতারের রাজধানী দোহায় মার্কিন বিমান ঘাঁটিতে রয়েছেন।

পরারাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (পূর্ব) মাশফি বিনতে শামস শনিবার গণমাধ্যমকে এই তথ্য নিশ্চিত করেন। এর আগে শনিবার রাতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. আবদুল মোমেন বলেন, ‘আফগান শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ১২ বাংলাদেশি মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে পৌঁছেছেন। শিগগিরই তারা একটি চার্টার্ড ফ্লাইটে বাংলাদেশে আসবেন।’

আফগানিস্তানে তালেবানের ক্ষমতা গ্রহণের পর বিশ্বের বিভিন্ন দেশ তাদের নাগরিকদের সরিয়ে নিচ্ছে। এরমধ্যেই বাংলাদেশও সরকারও দেশটিতে আটকে পড়া নাগরিকদের ফিরিয়ে আনতে সচেষ্ট হয়। গত বুধবার থেকে কাবুল বিমানবন্দরে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করেও ১৫ বাংলাদেশিসহ চট্টগ্রামের এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব উইমেনের ১৬০ আফগান শিক্ষার্থী বাংলাদেশে আসতে পারেননি। তালেবানের অনুমতি না পাওয়ায় গত কয়েক দিন ধরে আফগান ছাত্রীরা কাবুল এয়ারপোর্টের ভেতরে ঢুকতে পারছিলেন না।

দেড় বছর আগে কোভিড-১৯ মহামারির কারণে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ হলে ১৬০ জন আফগান ছাত্রী নিজ দেশে যান। এখন বাংলাদেশে বিশ্ববিদ্যালয়টি খোলার প্রস্তুতি শুরু হওয়ায় তারা চট্টগ্রামে ফিরতে গিয়ে বিপাকে পড়েন। এর মধ্যেই বৃহস্পতিবার কাবুল হামিদ কারজাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের বাইরে বোমা হামলা হয়। ওই বোমা হামলায় দেড় শতাদিক মানুষ নিহত হয়েছেন। এ নিয়ে আফগানিস্তানে আটকে পড়া বাংলাদেশিদের জন্য তাদের উদ্বেগ উৎকণ্ঠা দেখা দেয়।

আফগানিস্তানে এ পর্যন্ত ২৯ বাংলাদেশি রয়েছেন। তাদের মধ্যে দুজনকে কাবুল থেকে কাতারে সরিয়ে নিয়েছে মার্কিন বাহিনী। এছাড়া ব্র্যাকের তিন কর্মকর্তাকে কাজাখস্তানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। কাবুল বিমানবন্দরে নিরাপত্তা দিতে ছয় হাজার মার্কিন সৈন্য, এক হাজার ব্রিটিশ সৈন্য এবং ন্যাটো সৈন্যরা মোতায়েন আছেন। আফগান ছাত্রীদের বাংলাদেশে আনার জন্য জাতিসংঘ উদ্বাস্তু সংস্থা ইউএনএইচসিআর একটি সুপরিসর এয়ারক্রাফট ভাড়া করেছে।

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments