নিউজটি শেয়ার করুন

জেএম সেন হলে জন্মাষ্টমী উৎসবের ২য় দিনের আলোচনা সভা

মানুষ হতে হলে ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলতে হবে : চসিক মেয়র

সিপ্লাস ডেস্ক: রেজাউল চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, সকল ধর্মে সাম্যের কথা, শান্তির কথা, মানবতার কথা বলা হয়েছে। ধর্ম আমাদের নৈতিকতা ও মানবিক হতে শেখায়। ধর্মচর্চা মানুষের অন্তরাত্মাকে পরিশুদ্ধ করে। মানুষ হতে হলে ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলতে হবে। শ্রীকৃষ্ণ মানুষকে সত্য ও ন্যায়ের পথে চলতে যে শিক্ষা দিয়ে গেছেন তা ধারণ করতে পারলে সমাজে কোন বৈষম্য থাকবে না।

তিনি মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) সন্ধ্যায় শ্রীশ্রী জন্মাষ্টমী উদ্যাপন পরিষদ-বাংলাদেশ, কেন্দ্রীয় কমিটি আয়োজিত নগরীর জেএম সেন হলে জন্মাষ্টমী উৎসবের ২য় দিনের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে ভার্চুয়াল সভাপতিত্ব করেন জন্মাষ্টমী পরিষদ কেন্দ্রীয় সভাপতি শিল্পপতি সুকুমার চৌধুরী। অনুষ্ঠানে মঙ্গলপ্রদীপ প্রজ্বালন করেন বাঁশখালীর ঋষিধাম ও তুলসীধামের মোহন্ত শ্রীমৎ স্বামী সুদর্শনানন্দ পুরী মহারাজ, সীতাকুণ্ড শংকর মঠ ও মিশনের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ স্বামী তপনানন্দ গিরি মহারাজ, লক্ষ্মী নারায়ণ কৃপানন্দ পুরী মহারাজ।

উদ্বোধক ছিলেন জন্মাষ্টমী উদ্যাপন পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সুজিত কুমার বিশ্বাস (মন্টু)।

অধ্যাপক অর্পণ কান্তি ব্যানার্জীর সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন জন্মাষ্টমী পরিষদের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী প্রবীর কুমার সেন।

বিশেষ অতিথি ছিলেন জন্মাষ্টমী কেন্দ্রীয় পরিষদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. চন্দন তালুকদার ও বিমল কান্তি দে। বক্তব্য রাখেন লায়ন আশীষ কুমার ভট্টাচার্য্য, মাইকেল দে, লায়ন তপন কান্তি দাশ, সুমন দেবনাথ, অমিত চৌধুরী, তাপস কুমার নন্দী, শ্রীপ্রকাশ দাশ অসিত, রত্নাকর দাশ টুনু, সজল দত্ত।

শুরুতে গীতাপাঠ করেন অধ্যাপক স্বদেশ চক্রবর্তী।

উপস্থিত ছিলেন চসিক কাউন্সিলর পুলক খাস্তগীর, অধ্যাপক কুশল বরণ চক্রবর্তী, রতন আচার্য্য, প্রকৌশলী আশুতোষ দাশ, শিবু প্রসাদ দত্ত, রবিশংকর আচার্য্য, আশীষ চৌধুরী, সঞ্জীব বৈদ্য, প্রদীপ শীল, স্বপন বৈষ্ণব, সন্তোষ ঘোষ, বাপ্পী নন্দী, প্রিয়তোষ ঘোষ রতন, অ্যাড. টিপু শীল জয়দেব, বিশ্বজিৎ রায় প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে বিভিন্ন মঠ-মন্দির প্রতিনিধিদের মাঝে এক বস্তা চাল ও নগদ অর্থ এবং হতদরিদ্রদের খাদ্যসামগ্রী তুলে দেন অতিথিবৃন্দ। সভাপতির ভার্চুয়াল বক্তব্যে সবাইকে জন্মাষ্টমীর শুভেচ্ছা জানিয়ে জন্মাষ্টমী পরিষদ কেন্দ্রীয় সভাপতি শিল্পপতি সুকুমার চৌধুরী সরকারের কাছে ৫টি দাবি তুলে ধরেন।

দাবিগুলো হলো- হিন্দু বিবাহ নিবন্ধন আইনকে ঐচ্ছিক থেকে বাধ্যতামূলক, সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন প্রণয়ন করা, জাতীয় সংখ্যালঘু কমিশন গঠন করা, জাতীয় সংখ্যালঘু মন্ত্রণালয় গঠন করা ও দেবোত্তর সম্পত্তি সংরক্ষণ আইন প্রণয়ন করা।

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments