নিউজটি শেয়ার করুন

জাতীয় সনদ ও জন্ম নিবন্ধন করায় সীতাকুণ্ডে এক টাউটকে আটক, মুচলেখা দিয়ে ছাড়া

ছবি: টাউট নুরুল আবছার শাহীন

কামরুল ইসলাম দুলু, সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি: সীতাকুণ্ডে জাতীয় সনদপত্র (আইডি কার্ড) ও জন্ম নিবন্ধন সনদ জাল করে বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে টাকা আদায় করার অভিযোগে মোঃ নুরুল আবছার শাহীন (৩৫) নামে এক টাউটকে আটক করা হয়েছে। জীবনে আর কোনদিন এসব কাজ করবেনা মর্মে মুচলেখা দিলে তাকে দেওয়া হয়েছে। বুধবার বিকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা  নির্বাহী ম্যাজিট্রেট মোঃ শাহাদাত হোসেন এই টাউটকে মুচলেখা নিয়ে (মুক্তি)ছেড়ে দেন।

শাহীন হাটহাজারী ফতেয়াবাদ সন্দ্বীপ কলোনীর মোঃ হেলাল সওদাগরের পুত্র জানা যায়,উপজেলার ভাটিয়ারি ইউনিয়নের জৈনক মিন্টু দাশ ও বানু দাশ নামে দুইজন চাকুরীর জন্য সঠিক বয়স ও নাম পরিবর্তন করে ভুয়া নাম ও বয়সের আইডি করতে শরনাপন্ন হন টাউট শাহীনের কাছে। শাহীন তাদেরকে সংশোধন করতে প্রতিজন থেকে ২০ হাজার টাকা করে নেন। দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হওয়ার পর ভুক্তভোগী দুইজন টাউট শাহীনকে নিয়ে সীতাকুণ্ড নিবার্চন কমিশন অফিসে যান। কিন্তু কোন সুদত্তর না পেয়ে তাঁরা প্রতারক শাহীনকে নিয়ে নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে মুখিকভাবে বিষয়টির অভিযোগ করেন। ইউএনও তাৎক্ষনিক শুনে প্রশাসনিক কর্মকর্তা অনিল কান্তি বড়ুয়াকে বিষয়টি দেখতে বলেন এবং দীর্ঘ সময় উভয়ের কথা শুনে বুঝতে পারেন শাহীন এর আগেও একাধিক লোকের কাছ থেকে এভাবে জাল সনদ ও জন্ম নিবন্ধন দিবে বলে টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।

প্রথমবার বিবেচনা করে আর কোন দিন এসকল কাজ করবে না মর্মে শাহীনের কাছ থেকে একটি মুচলেখা নেয় এবং পরবর্তীতে উপজেলার কোথাও তাকে দেখা মাত্র পুলিশের কাছে সোপর্দ করবে বলে হুশিয়ারি প্রদান করেন। এ বিষয়ে সীতাকুণ্ড উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ শাহাদাত হোসেন বলেন,“অভিযুক্ত লোকটি আইনের কাছে অপরাধী। অভিযোগকারীরা চাইলে অপরাধীর বিরুদ্ধে মামলা করতে পারবেন। মামলা না করায় আমার কাছে অপরাধের প্রথম বার হওয়ায় আমরা তাকে টাউট হিসেবে চিহিৃত করলাম এবং ভবিষ্যতে উপজেলার আশে-পাশে দেখলে আইনের আওতায় নিয়ে আসবো।”

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments