নিউজটি শেয়ার করুন

চিকিৎসা বর্জ্য ব্যবস্থাপনা না থাকায় ‘চট্টগ্রাম সেবা সংস্থাকে’ জরিমানা

সিপ্লাস প্রতিবেদক: যথাযথ চিকিৎসা বর্জ্য ব্যবস্থাপনা না থাকায় বেসরকারি প্রতিষ্ঠান চট্টগ্রাম সেবা সংস্থাকে আড়াই লাখ টাকা জরিমানা করেছে পরিবেশ অধিদপ্তর।

মঙ্গলবার পরিবেশ অধিদপ্তর, চট্টগ্রাম মহানগর কার্যালয়ের পরিচালক মো. নুরুল্লাহ নুরী শুনানি শেষে এ জরিমানা করেন।

পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম মহানগরের উপ-পরিচালক মিয়া মাহমুদুল হক গণমাধ্যমকে বলেন, সাধারণ ও চিকিৎসা বর্জ্য পৃথকভাবে পরিবহনের বিধান থাকলেও প্রতিষ্ঠানটি তা অনুসরণ করছে না। এতে চিকৎসা বর্জ্য বিধিমালার লঙ্ঘন হয়েছে।

“সাধারণ ও চিকিৎসা বর্জ্য প্রতিষ্ঠানটি একত্রে পরিবহন করছে। এতে সাধারণ বর্জ্যও পরিণত হচ্ছে সংক্রামক বর্জ্যে। সিরিঞ্জের সুঁচ, কাঁচি ইত্যাদি ধারালো ও সংক্রামক বর্জ্য কাটা বা ধ্বংস করার জন্য প্রতিষ্ঠানটিতে কোনো যন্ত্রপাতি দেখা যায়নি।”

তিনি বলেন, উচ্চ তাপমাত্রায় মেশিনে বর্জ্য ধ্বংস করার কথা থাকলেও সেখানে সনাতন পদ্ধতির চুল্লি দিয়ে তা করা হচ্ছিল। স্যালাইনের নল ও বোতলসহ বিভিন্ন সরঞ্জাম পাকা চৌবাচ্চায় ব্লিচিং পাউডারের দ্রবণে রেখে জীবানুমুক্ত করার কথা বলা হলেও প্রতিষ্ঠানটিতে ব্লিচিং পাউডার পাওয়া যায়নি।

নগরীর হালিশহর আনন্দ বাজার এলাকায় অবস্থিত ‘চট্টগ্রাম সেবা সংস্থা’র বর্জ্য নষ্ট করার এলাকা পরিদর্শন করে এসব অনিয়ম দেখা মেলে। প্রতিষ্ঠানটি নিয়ম ভেঙ্গে সরাসরি না করে ‘হযরত শাহজালাল এন্টারপ্রাইজ’ নামক দ্বিতীয় আরেকটি প্রতিষ্ঠানকে দিয়ে এসব কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

পরিবেশ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা মাহমুদুল হক বলেন, সংক্রামক বর্জ্যগুলো জীবানুমুক্ত ও পরিশোধন ছাড়াই কেটে টুকরো করে তা বিভিন্ন রিসাইক্লিংকারী প্রতিষ্ঠানে শাহজালাল এন্টারপ্রাইজ বিক্রি করছে বলে প্রমাণ মিলেছে। প্রতিষ্ঠান দুটির কর্মকাণ্ডের ফলে সংশ্লিষ্ট এলাকার পরিবেশ ও প্রতিবেশের মারাত্মক ক্ষতি করছে।

মঙ্গলবার চট্টগ্রাম সেবা সংস্থার মালিক জমির উদ্দিন ও শাহজালাল এন্টারপ্রাইজের মালিক মো. ইব্রাহীমের উপসিম্থতিতে পরিবেশ অধিদপ্তর, চট্টগ্রাম মহানগরের পরিচালক শুনানি করেন।

শুনানি শেষে সেবা সংস্থাকে আড়াই লাখ টাকা এবং শাহজালাল এন্টারপ্রাইজকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

প্রতিষ্ঠান দুটিকে সাতদিনের মধ্যে জরিমানার টাকা পরিশোধ করতে বলার পাশাপাশি একমাসের মধ্যে চিকিৎসা-বর্জ্য (ব্যবস্থাপনা ও প্রক্রিয়াজাতকরণ) বিধিমালা, ২০০৮ মেনে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা গড়ে তোলার নির্দেশ দেয়া হয়।

চট্টগ্রাম মহানগরের গৃহস্থালীসহ বিভিন্ন বর্জ্য অপসারণ ও প্রক্রিয়াজাতকরণের কাজ করে থাকে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন। এর বাইরে চিকিৎসা বর্জ্য অপসারণের কাজ করার জন্য নিয়োজিত রয়েছে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ‘চট্টগ্রাম সেবা সংস্থা’।

এ ব্যাপারে চট্টগ্রাম সেবা সংস্থার কর্ণধার জমির উদ্দিনের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

 

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments