নিউজটি শেয়ার করুন

কোন সাম্প্রদায়িক শক্তি মাথা তুলে দাঁড়াতে পারবে না : জন্মাষ্টমী উৎসবের ২য় পর্বের আলোচনা সভায় শিক্ষা উপমন্ত্রী নওফেল

ভগবান শ্রীকৃষ্ণের আদর্শে শান্তিময় বিশ্ব গড়া সম্ভব : বিপ্লব বড়ুয়া

সিপ্লাস ডেস্ক: শ্রীশ্রী জন্মাষ্টমী উদ্যাপন পরিষদ-বাংলাদেশ, কেন্দ্রীয় কমিটি আয়োজিত জন্মাষ্টমী উৎসবের ২য় পর্বের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিষ্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেছেন, সকল ধর্মের মর্মবাণী হচ্ছে মানুষের মধ্যে ভ্রাতৃত্ববোধ সৃষ্টি করা। বাংলাদেশ রচিত হয়েছিল মুসলিম, হিন্দু, বৌদ্ধ খ্রিস্টান সবার রক্তের ¯্রােতের বিনিময়ে। এদেশে কোনো সাম্প্রদায়িক শক্তি মাথা তুলে দাঁড়াতে পারবে না।

তিনি বলেন, বৈশ্বিক করোনা মহামারীর মুহূর্তে সকলে জাতিগত হিংসা, বিদ্বেষ ভুলে গিয়ে সৌভ্রাতৃত্বের বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে কল্যাণের পথে দেশ ও জাতিকে এগিয়ে নিতে হবে। শুভ জন্মাষ্টমী উৎসবে সবাই মানবজাতির জন্য এক শান্তিপূর্ণ ও মঙ্গলময় বিশ্ব গড়ে তোলার প্রত্যয় গ্রহণ করুন।

বিশেষ অতিথি বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিষ্টার বিপ্লব বড়ুয়া বলেছেন, এদেশের মানুষ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে বিশ্বাসী। প্রত্যেকের স্ব-স্ব ধর্ম পালনের সমান অধিকার রয়েছে। তা নস্যাৎ করতে একটি দুষ্টচক্র উঠে-পড়ে লেগেছে। তা কখনো হতে দেয়া যাবে না। এজন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকবে হবে। ভগবান শ্রীকৃষ্ণের আদর্শে শান্তিময় বিশ্ব গড়া সম্ভব। তাঁর আদর্শ ধারণ করতে পারলে সমাজে কোন বৈষম্য থাকতে পারে না।

সোমবার (৩০ অক্টোবর) বিকালে নগরীর জেএম সেন হলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ভার্চুয়াল সভাপতিত্ব করেন জন্মাষ্টমী পরিষদ কেন্দ্রীয় সভাপতি শিল্পপতি সুকুমার চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে মঙ্গলপ্রদীপ প্রজ্বালন করেন শ্রীমৎ স্বামী সুদর্শনানন্দ পুরী মহারাজ ও শ্রীমৎ স্বামী গিরিজানন্দ পুরী মহারাজ।

চট্টগ্রাম মহানগর পূজা পরিষদের সভাপতি লায়ন আশীষ কুমার ভট্টাচার্যের সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন জন্মাষ্টমী পরিষদের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী প্রবীর কুমার সেন।

শুরুতে পবিত্র গীতা থেকে পাঠ করেন চন্দন দাশ।

বক্তব্য রাখেন যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-প্রচার সম্পাদক আদিত্য নন্দী।

উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক ড. বিপ্লব গাঙ্গুলী, লায়ন তপন কান্তি দাশ, অধ্যাপক অর্পণ ব্যানার্জী, সুমন দেবনাথ, তাপস কুমার নন্দী, রাজীব দত্ত রিংকু, লায়ন দিলীপ ঘোষ, শ্রীপ্রকাশ দাশ অসিত, রত্নাকর দাশ টুনু, হিল্লোল সেন উজ্জ্বল, অমিত চৌধুরী, মিথুন মল্লিক, সজল দত্ত, বিপ্লব সেন, সুকান্ত মহাজন টুটুল, এস প্রকাশ পাল, কাউন্সিলর জহরলাল হাজারী, পুলক খাস্তগীর, নিলু নাগ, রুমকি সেনগুপ্ত, তসলিমা বেগম নুরজাহান (রুবি), হুরে আরা বেগম বিউটি, বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টী মিথুন বড়ুয়া, অধ্যাপক অরূপ বড়ুয়া, রাধা রানী দেবী, রাজশ্রী মজুমদার, রতন ঘোষ, বিপ্লব মিত্র, নন্দীতা দাশগুপ্ত, অসিক দত্ত, রিপন রায় চৌধুরী, বিশ্বজিত রায়, রাজন দাশ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে অসহায় হতদরিদ্র শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষাসামগ্রী তুলে দেন অতিথিবৃন্দ।

ভার্চুয়াল সভাপতির বক্তব্যে জন্মাষ্টমী পরিষদ কেন্দ্রীয় সভাপতি শিল্পপতি সুকুমার চৌধুরী জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে সকলকে ভগবান শ্রীকৃষ্ণের শুভ জন্মতিথির শুভেচ্ছা জানান এবং ৫টি দাবি উপস্থাপন করেন।

দাবিগুলো হলো- হিন্দু বিবাহ নিবন্ধন আইনকে ঐচ্ছিক থেকে বাধ্যতামূলক, সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন প্রণয়ন করা, জাতীয় সংখ্যালঘু কমিশন গঠন করা, জাতীয় সংখ্যালঘু মন্ত্রণালয় গঠন করা ও দেবোত্তর সম্পত্তি সংরক্ষণ আইন প্রণয়ন করা

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments