নিউজটি শেয়ার করুন

কাপ্তাই হ্রদের ২৫হাজার জেলে’র জন্য নতুন ৫শ মে:টন বিশেষ ভিজিএফ বরাদ্দ অনুমোদন

আলমগীর মানিক,রাঙামাটি: নির্ধারিত তিনমাস সময়ের পরও কাপ্তাই হ্রদের পানি আশানুরূপ বৃদ্ধি না পাওয়ায় তিন দফা ১০দিন করে আরো একমাস বেশি সময় কাপ্তাই হ্রদে সকল প্রকার মৎস্য সম্পদ আহরণ ও বিপনন বন্ধকালীন সময়ে বেকার হয়ে পড়া জেলেদের জন্য নতুন করে ৫শ মেট্রিকটন বিশেষ ভিজিএফ খাদ্য শস্য বরাদ্ধ দিয়েছে সরকারের সংশ্লিষ্ট্য মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) জারিকৃত এই সংক্রান্ত বরাদ্দপত্রে বলা হয়েছে, কাপ্তাই হ্রদে মৎস্য আহরণ বন্ধকালীন আগস্ট মাসের জন্য ২৫ হাজার ৩১টি মৎস্যজীবী পরিবারকে মানবিক সহায়তা কর্মসূচির আওতায় ৫০০ টন বিশেষ ভিজিএফ (চাল) খাদ্য সহায়তা দেয়া হবে। বরাদ্দের আওতায় কাপ্তাই হ্রদ তীরবর্তী রাঙামাটির ৮ ও খাগড়াছড়ির ২ উপজেলা নিয়ে দশ উপজেলার নিবন্ধিত মৎস্যজীবী পরিবারগুলোকে পরিবার প্রতি ২০ কেজি করে খাদ্যশস্য (চাল) সহায়তা প্রদান করা হবে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে রাঙামাটিস্থ বিএফডিসি’র ব্যবস্থাপক নৌ-বাহিনীর কর্মকর্তা লেঃ কমান্ডার তৌহিদুল ইসলাম প্রতিবেদককে জানিয়েছেন, এবছর কাপ্তাই হ্রদে সময়োপযোগী পানি বৃদ্ধি না হওয়ায় মৎস্য সম্পদ রক্ষায় জেলে ও ব্যবসায়িসহ প্রশাসনের সংশ্লিস্ট্যদের সাথে নিয়ে আলোচনার মাধ্যমে মাছ ধরা বন্ধকালীন সময় আরো একমাস বৃদ্ধি করা হয়েছিলো। এসময় কাপ্তাই হ্রদের উপর মৎস্যজীবিরা সংকটে পড়ে। বিষয়টি নিয়ে সংবাদ মাধ্যমে খবরও প্রকাশ করা হয়েছিলো। আমরা বিএফডিসি ও জেলা প্রশাসন কর্তৃপক্ষ বিষয়টি লিখিত আকারে উদ্বর্তন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করি। আমাদের প্রদত্ত পত্রের আলোকে কর্তৃপক্ষ নতুন করে বিশেষ ভিজিএফ বরাদ্দের আওতায় রাঙামাটির সদর উপজেলার ৪,৯৬৫ জেলের জন্য ৯৯.৩০ টন; লংগদু’র ৮,৫৮১ জেলে ১৭১.৬২ টন, বাঘাইছড়ির ১,৭০৫ জেলে ৩৪.১০ টন, নানিয়ারচরের ১,৮৬৩ জেলে ৩৭.২৬ টন, কাপ্তাইয়ের ৭০২ জেলে ১৪.৪ টন, বিলাইছড়ির ১,০৭৭ জেলে ২১.৫৪ টন, জুরাছড়ির ৪০৭ জেলে ৮.১৪ টন, বরকলের ২,৯৫৫ জন জেলে ৫৯.১০ টন এবং খাগড়াছড়ির মহালছড়ির ১,৫৯১ জেলে ৩১.৮২ টন, দীঘিনালার ১,১৮৫ জেলে পরিবার ২৩.৭০ টন খাদ্যশস্য পাবেন।

কাপ্তাই হ্রদে মৎস্য সম্পদ রক্ষায় প্রাকৃতিক প্রজনন নিশ্চিতসহ অবমুক্তকৃত পোনাগুলো সঠিক ভাবে বেড়ে উঠা নিশ্চিতকরণে প্রতিবছরের পহেলা “মে” থেকে ৩১ জুলাই পর্যন্ত টানা তিনমাস সময় পর্যন্ত সবধরনের মাছ শিকার, বাজারজাতকরণ এবং পরিবহনের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে রাঙামাটি জেলা প্রশাসন কর্তৃপক্ষ। তারই ধারাবাহিকতায় চলতি বছরও নিষেধাজ্ঞার তিনমাস সময় দেয়া হলেও হ্রদে প্রয়োজনীয় পানি বৃদ্ধি না হওয়ায় ১০দিন করে তিন দফায় আরো এক মাস (আগস্ট) কাপ্তাই হ্রদে মাছ আহরণ-বিপনন বন্ধ রাখা হয়। বন্ধকালীন এই সময়ে করোনাকালীন লকডাউন চলমান থাকায় নিদারূন কষ্টে পড়ে হ্রদের মৎস্য সম্পদের উপর নির্ভরশীল হয়ে জীবিকা নির্বাহ করা ২৫ হাজারের অধিক জেলে পরিবারগুলো।

বিষয়টি নিয়ে জেলেদের দূর্ভোগ নিয়ে প্রতিবেদক কর্তৃক ইলেকট্রনিক্স মিডিয়াসহ বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে স্বচিত্র সংবাদ প্রকাশ করা হয়।

সংবাদ প্রকাশের পর রাঙামাটি জেলা প্রশাসন ও বিএফডিসি কর্তৃপক্ষ বিষয়টি লিখিত আকারে উদ্বর্তন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করলে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের নির্দেশনায় বৃদ্ধিকৃত একমাস সময়ের বিপরীতে নতুন করে ৫শ মেট্রিক টন বিশেষ ভিজিএফ বরাদ্দ অনুমোদন দেয় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় কর্তৃপক্ষ।

বিএফডিসির ডেপুটি ম্যানেজার জাহিদুল ইসলাম লিখন জানিয়েছেন, প্রতি বছরের ন্যায় এবছরও তিনমাস বন্ধকালীন সময়ে ২৫ হাজার ৩১ জেলে পরিবারের জন্য ১,৩৩৫ মেট্রিক টন ভিজিএফ খাদ্যশস্য বরাদ্দ দেয় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় কর্তৃপক্ষ।

সংশ্লিষ্ট্য উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তাগণ এই বরাদ্দের চাল নিবন্ধিত জেলেদের মাঝে বিতরণ করবেন বলেও জানিয়েছেন তিনি।

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments