নিউজটি শেয়ার করুন

করোনায় বন্দর নগরীতে থেমে নেই অপরাধ (ভিডিওসহ)

অপরাধ রুখতে বদ্ধপরিকর পুলিশ

জিয়াউল হক ইমন: করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে ব্যাপক কর্মসূচির জন্য পুলিশ সার্বক্ষনিক মাঠে থাকায় আগে থেকে থানায় মামলা দায়েরের সংখ্যা কমলেও বন্দরনগরী চট্টগ্রামে থেমে নেই অপরাধ। এমন দুর্যোগময় সময়ে কোথাও না কোথাও আজ নয়তো কাল অপরাধ ঘটে চলছে।যদিও সাম্প্রতিক সময়ে বেশীরভাগ মামলায় আসামীরা পুলিশের হাতে হয়েছেন গ্রেফতার।

সর্বশেষ ১১ মে নগরীর ডবলমুড়িং থানাধীন দেওয়ানহাট মিটাগলির রাশেদ মার্কেটে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নেওয়ার জন্য দোকান খোলায় আরাকান মোটর্সের মালিক ও তার ভাইয়ের উপর হামলার অভিযোগ উঠেছে বাড়িওয়ালার বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এর আগে ৮ মে চান্দগাঁও থানাধীন এলাকায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এমনকি একই থানাধীন এলাকায় এর আগের দিন সৎ বাপের হাতে কন্যা ধর্ষণের ঘটনায় মামলাও হয়েছে। এছাড়াও এদিন রাতে বায়েজিদ থানাধীন এলাকায় পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে দিদারুল আলম প্রকাশ রিদোয়ান (৪৯) নামে এক ব্যক্তি খুন হয়েছেন।

৪ মে আকবর শাহ থানা এলাকায় নির্মল চন্দ্র আইস নামে এক পাঁচ বছর বয়সি ছোট্ট শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ।

১ মে কোতয়ালী থানাধীন পাথরঘাটা আশরাফ আলী রোড এলাকায় বাড়ীওয়ালা ও দোকানদারের বিরোধে ভাঙচুর করার অভিযোগ আছে। এঘটনায় অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠিয়েছে কোতয়ালী থানা পুলিশ।

৩০ এপ্রিল আড্ডা দিতে বাধা দেওয়ায় রেলওয়ে নিরাপত্তাবাহিনীর (আরএনবি) সদস্যকে সিপাহী মো. হাফিজুর রহমানকে পিটিয়ে জখম করার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কয়েকজন আসামিরা গ্রেফতার আছে।

২৯ এপ্রিল বক্সিরহাট পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বে থাকা কামরুল হাসান নামে এক এএসআই’র হেফাজতে থাকা টেরিবাজারের প্রার্থনা বস্ত্রালয়ের কর্মচারি গিরিধারী চৌধুরীর (৫৮) মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় অভিযুক্ত এএসআই কামরুলকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

২৮ এপ্রিল বাকলিয়া থানাধীন এলাকায় ছিনতাই হওয়া টাকা ও ছিনতাইয়ে ব্যবহৃত ছুরি উদ্ধারসহ ৩ ছিনতাইকারী গ্রেফতার হয়েছে।

২৫ এপ্রিল কর্ণফুলীতে সালিশি বৈঠকে আরিফুল ইসলাম দোভাষ নামে একজন খুন হয়েছেন। এ ঘটনায় মূল অভিযুক্তদের গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

২৪ এপ্রিল কর্ণফুলী উপজেলায় ঝাড়ফুঁকের কথা বলে ঘর থেকে ডেকে নিয়ে মাওলানা সায়ের মোহাম্মদ ওরফে সাগর নামের এক কবিরাজকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছিল। এঘটনায় ঘটনায় জড়িত ছয়জনকে আটক করেছে র‌্যাব-৭।

২৩ এপ্রিল বাকলিয়া থানাধীন রাহাত্তারপুল বড় কবরস্থান এলাকায় পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রীকে খুনের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জড়িত থাকায় স্বামী মুছা গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

২১ এপ্রিল পাঁচলাইশ থানাধীন এলাকায় শীর্ষ সন্ত্রাসী সাজ্জাদ আলী খানের নির্দেশে কোটি টাকা চাঁদা আদায় করতে গিয়ে এক প্রবাসীর বাড়িতে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় সাজ্জাদের সহযোগী ঢাকাইয়া আকবরসহ ৩ সন্ত্রাসী আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

২০ এপ্রিল ডবলমুরিং থানা এলাকায় ভাইয়ের হাতে ভাই খুন হওয়ার অভিযোগ ছিল। যদিও এলাকাবাসীর অনেকেই বলছেন, ধাক্কা দেয়ার কারণেই তিনি ‘হৃদরোগে’ আক্রান্ত হয়ে মারা যায়। এ ঘটনায় মামলা করা হয়েছে।

১৪ এপ্রিল হালিশহর থানাধীন এলাকায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে ছুরিকাঘাতে খুন হয়েছেন মো. জামাল নামের এক ব্যাক্তি। এ ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

১০ এপ্রিল কোতয়ালী থানাধীন চট্টগ্রাম নগরীর পাথরঘাটা ফিশারীঘাট এলাকায় অবাধে চোলাই মদ বেচা-কেনা ও বেপরোয়া মদ সেবনকারীদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় একজনের উপর হামলার অভিযোগ ছিল।

৭ এপ্রিল কোতোয়ালী থানাধীন বক্সিরহাট এলাকায় ক্রেতার কাছে পণ্যের অতিরিক্ত মূল্য দাবির প্রতিবাদ করায় হামলার শিকার হয়েছেন চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের নির্বাহী সদস্য মুহাম্মদ মহরম হোসাইনের উপর হামলা হয়। এ ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

৭ এপ্রিল রাতে পটিয়ায় পান দোকানিকে সাড়ে তিন লাখ টাকার আশায় খুন করেছিল খুনিরা পটিয়া কালারপোল এলাকার পান দোকানি আবদুল কাদেরকে রাতে সাড়ে লাখ টাকা হাতিয়ে নিতে খুন করেছিল খুনিরা।এ ঘটনার ১৩ দিন পর খুনের সাথে জড়িত সাগরকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটলিয়ন র‌্যাব।

এছাড়াও সংবাদ মাধ্যমের চোখ ফাঁকি দিয়ে এই করোনাকালে প্রতিনিয়ত কোন না কোন অপরাধ করে চলেছে দুর্বৃত্তরা।

সমাজবিজ্ঞানী মঞ্জুরুল আমিন চৌধুরী এ বিষয়ে সিপ্লাসকে বলেন, অপরাধী সেই দলেরই হোক তাকে অপরাধী হিসাবে গন্য করে দ্রুত কঠোর শাস্তি নিশ্চিত করলেই অপরাধ প্রবণতা কমবে।

চট্টগ্রাম সনাক-টিআইবির সভাপতি এডভোকেট আখতার কবির চৌধুরী সিপ্লাসকে বলেন, করোনায় যেখানে মানুষের জীবন বাঁচানো দায় সেখানেও অপরাধীরা অপরাধ করেই যাচ্ছে। করোনার এই দুর্যোগময় সময়ে অপরাধীদের অপরাধ থেকে দুরে থাকতে আহ্বানও জানান তিনি।

সিএমপির অতি: কমিশনার (ক্রাইম এন্ড অপারেশন) শ্যামল কুমার নাথ সিপ্লাসকে জানান, করোনায় মানবিক পুলিশিংয়ের পাশাপাশি আগের ন্যায় অপরাধ দমনে পুলিশের সব কাজ অব্যাহত আছে। তবুও দু একটা বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটে যাচ্ছে। ঘটনা ঘটার সঙ্গে সঙ্গে আমরা দ্রুত ব্যবস্থা নিচ্ছি।

বিস্তারিত দেখতে নিচে দেয়া ভিডিও লিঙ্কটিতে প্রবেশ করুন।